রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন) ৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) - The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩১: সালাম দেওয়ার গুরুত্ব ও তা ব্যাপকভাবে প্রচার করার নির্দেশ

আল্লাহ বলেছেন,

﴿يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ لَا تَدْخُلُواْ بُيُوتًا غَيْرَ بُيُوتِكُمْ حَتَّىٰ تَسْتَأْنِسُواْ وَتُسَلِّمُواْ عَلَىٰٓ أَهْلِهَا ﴾ [النور: ٢٧]

অর্থাৎ “হে ঈমানদারগণ! তোমরা নিজেদের গৃহ ব্যতীত অন্য কারও গৃহে গৃহবাসীদের অনুমতি না নিয়ে ও তাদেরকে সালাম না দিয়ে প্রবেশ করো না।” (সূরা নূর ২৭ আয়াত)

তিনি অন্যত্র বলেন,

﴿ فَإِذَا دَخَلۡتُم بُيُوتٗا فَسَلِّمُواْ عَلَىٰٓ أَنفُسِكُمۡ تَحِيَّةٗ مِّنۡ عِندِ ٱللَّهِ مُبَٰرَكَةٗ طَيِّبَةٗۚ ﴾ [النور: ٦١]

অর্থাৎ “যখন তোমরা গৃহে প্রবেশ করবে, তখন তোমরা তোমাদের স্বজনদের প্রতি সালাম বলবে। এ হবে আল্লাহর নিকট হতে কল্যাণময় ও পবিত্র অভিবাদন।” (সূরা নূর ৬১ আয়াত)

তিনি অন্য জায়গায় বলেন,

﴿ وَإِذَا حُيِّيتُم بِتَحِيَّةٖ فَحَيُّواْ بِأَحۡسَنَ مِنۡهَآ أَوۡ رُدُّوهَآۗ ﴾ [النساء: ٨٦]

অর্থাৎ “যখন তোমাদেরকে অভিবাদন করা হয় (সালাম দেওয়া হয়), তখন তোমরাও তা অপেক্ষা উত্তম অভিবাদন কর অথবা ওরই অনুরূপ কর।” (সূরা নিসা ৮৬ আয়াত)

তিনি আরো বলেছেন,

﴿ هَلۡ أَتَىٰكَ حَدِيثُ ضَيۡفِ إِبۡرَٰهِيمَ ٱلۡمُكۡرَمِينَ ٢٤ إِذۡ دَخَلُواْ عَلَيۡهِ فَقَالُواْ سَلَٰمٗاۖ قَالَ سَلَٰمٞ ﴾ [الذاريات: ٢٤، ٢٥]

অর্থাৎ “তোমার নিকট ইব্রাহীমের সম্মানিত মেহমানদের বৃত্তান্ত এসেছে কি? যখন তারা তার নিকট উপস্থিত হয়ে বলল, ’সালাম।’ উত্তরে সে বলল, ’সালাম।’” (সূরা যারিয়াত ২৪-২৫ আয়াত)


১/৮৪৯। আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল ’আস রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, এক ব্যক্তি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে জিজ্ঞাসা করল, ’সর্বোত্তম ইসলামী কাজ কী?’ তিনি বললেন, “(ক্ষুধার্তকে) অন্নদান করবে এবং পরিচিত-অপরিচিত নির্বিশেষে সকলকে (ব্যাপকভাবে) সালাম পেশ করবে।’’ (বুখারী-মুসলিম) [1]

(131) بَابُ فَضْلِ السَّلَامِ وَالْأَمْرِ بِإِفْشَائِهِ

وَعَنْ عَبدِ اللهِ بنِ عَمرِو بنِ العَاصِ رَضِيَ اللهُ عَنهُمَا، أنَّ رَجُلاً سَأَلَ رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: أَيُّ الإِسْلاَمِ خَيْرٌ ؟ قَالَ: « تُطْعِمُ الطَّعَامَ، وَتَقْرَأُ السَّلاَمَ عَلَى مَنْ عَرَفْتَ وَمَنْ لَمْ تَعْرِفْ ». متفقٌ عَلَيْهِ

وعن عبد الله بن عمرو بن العاص رضي الله عنهما، أن رجلا سأل رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: أي الإسلام خير ؟ قال: « تطعم الطعام، وتقرأ السلام على من عرفت ومن لم تعرف ». متفق عليه

(131) Chapter: The Excellence of Promoting Greetings


Allah, the Exalted, says:
"O you who believe! Enter not houses other than your own, until you have asked permission and greeted those in them.'' (24:27)

"But when you enter the houses, greet one another with a greeting from Allah (i.e., say: As-Salamu `alaikum - peace be on you), blessed and good.'' (24:61)

"When you are greeted with a greeting, greet in return with what is better than it, or (at least) return it equally.'' (4:86)

"Has the story reached you, of the honoured guests [three angels; Jibril (Gabriel) along with another two] of Ibrahim (Abraham)? When they came in to him, and said, `Salam (peace be upon you)!' He answered: `Salam (peace be upon you).''' (51:24,25)

Abdullah bin 'Amr bin Al-'as (May Allah be pleased with them) reported:
A man asked the Messenger of Allah (ﷺ): "Which act in Islam is the best?" He (ﷺ) replied, "To give food, and to greet everyone, whether you know or you do not."

[Al-Bukhari and Muslim].

Commentary: Feeding poor and destitute is an act of goodness, and so is fulfilling the needs of the indigent. Greeting everybody (saying `As-Salamu `Alaikum'), whether an acquaintance or a stranger, is a good manner too. Both of these acts generate mutual love and remove hatred and ill will from hearts. All other forms of greetings do not no substitute for Islamic greeting.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩১: সালাম দেওয়ার গুরুত্ব ও তা ব্যাপকভাবে প্রচার করার নির্দেশ

২/৮৫০। আবূ হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ’’আল্লাহ যখন আদম আলাইহিস সালাম-কে সৃষ্টি করলেন। তখন তাঁকে বললেন, ’তুমি যাও এবং ঐ যে ফিরিশ্তামন্ডলীর একটি দল বসে আছে, তাদের উপর সালাম পেশ কর। আর ওরা তোমার সালামের কী জবাব দিচ্ছে তা মন দিয়ে শুনো। কেননা, ওটাই হবে তোমার ও তোমার সন্তান-সন্ততির সালাম বিনিময়ের রীতি।’ সুতরাং তিনি (তাঁদের কাছে গিয়ে) বললেন, ’আসসালামু আলাইকুম’। তাঁরা উত্তরে বললেন, ’আসসালামু আলাইকা অরহমাতুল্লাহ’। অতএব তাঁরা ’অরহমাতুল্লাহ’ শব্দটা বেশী বললেন।’’ (বুখারী ও মুসলিম) [1]

(131) بَابُ فَضْلِ السَّلَامِ وَالْأَمْرِ بِإِفْشَائِهِ

وَعَنْ أَبِي هُرَيرَةَ رضي الله عنه، عَنِ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم، قَالَ: لَمَّا خَلَقَ اللهُ آدَمَ عليه السلام، قَالَ: اذْهَبْ فَسَلِّمْ عَلَى أُولئِكَ ـ نَفَرٍ مِنَ المَلاَئِكَةِ جُلُوسٌ ـ فَاسْتَمِعْ مَا يُحَيُّونَكَ ؛ فَإنَّهَا تَحِيَّتُكَ وَتَحِيَّةُ ذُرِّيتِكَ . فَقَالَ: السَّلاَمُ عَلَيْكُمْ، فَقَالُوا: السَّلاَمُ عَلَيْكَ وَرَحْمَةُ اللهِ، فَزَادُوهُ: وَرَحْمَةُ اللهِ . متفقٌ عَلَيْهِ

وعن أبي هريرة رضي الله عنه، عن النبي صلى الله عليه وسلم، قال: لما خلق الله آدم عليه السلام، قال: اذهب فسلم على أولئك ـ نفر من الملائكة جلوس ـ فاستمع ما يحيونك ؛ فإنها تحيتك وتحية ذريتك . فقال: السلام عليكم، فقالوا: السلام عليك ورحمة الله، فزادوه: ورحمة الله . متفق عليه

(131) Chapter: The Excellence of Promoting Greetings


Abu Hurairah (May Allah be pleased with him) reported:
The Prophet (ﷺ) said, "When Allah created Adam (ﷺ), He said to him: 'Go and greet that company of angels who are sitting there - and then listen to what they are going to say in reply to your greetings because that will be your greeting and your off-spring's.' Adam (ﷺ) said to the angels: 'As-Salamu 'Alaikum (may you be safe from evil).' They replied: 'As-Salamu 'Alaikum wa Rahmatullah (may you be safe from evil, and Mercy of Allah be upon you).' Thus adding in reply to him: 'wa Rahmatullah (and Mercy of Allah)' to his greeting."

[Al- Bukhari and Muslim].


Commentary: The Islamic form of greeting - As-Salamu `Alaikum (may you be safe from evil) - has been in existence since the days of Prophet Adam. According to some Ahadith, it is better to add in response: wa Rahmatullahi wa Barakatuhu (and the Mercy and Blessings of Allah).


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩১: সালাম দেওয়ার গুরুত্ব ও তা ব্যাপকভাবে প্রচার করার নির্দেশ

২/৮৫১। আবূ উমারা বারা ইবনে আযেব রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, ’রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদেরকে সাতটি (কর্ম করতে) আদেশ করেছেনঃ (১) রোগী দেখতে যাওয়া, (২) জানাযার অনুসরণ করা, (৩) হাঁচির জবাব দেওয়া, (৪) দুর্বলকে সাহায্য করা, (৫) নির্যাতিত ব্যক্তির সাহায্য করা, (৬) সালাম প্রচার করা, এবং (৭) শপথকারীর শপথ পুরা করা।’ (বুখারী-মুসলিম) [1]

(131) بَابُ فَضْلِ السَّلَامِ وَالْأَمْرِ بِإِفْشَائِهِ

وَعَنْ أَبي عُمَارَةَ البَرَاءِ بنِ عَازِبٍ رَضِيَ اللهُ عَنهُمَا، قَالَ: أَمَرَنَا رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم بِسَبْعٍ: بِعِيَادَةِ المَرِيضِ، وَاتِّبَاعِ الجَنَائِزِ، وَتَشْمِيتِ العَاطِسِ، وَنَصْرِ الضَّعِيفِ، وَعَوْنِ المَظْلُومِ، وَإفْشَاءِ السَّلاَمِ، وَإبْرَارِ المُقسِمِ . متفقٌ عَلَيْهِ، هَذَا لفظ إحدى روايات البخاري

وعن أبي عمارة البراء بن عازب رضي الله عنهما، قال: أمرنا رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم بسبع: بعيادة المريض، واتباع الجنائز، وتشميت العاطس، ونصر الضعيف، وعون المظلوم، وإفشاء السلام، وإبرار المقسم . متفق عليه، هذا لفظ إحدى روايات البخاري

(131) Chapter: The Excellence of Promoting Greetings


Al-Bara' bin 'Azib (May Allah be pleased with them) reported:
The Messenger of Allah (ﷺ) commanded us to do seven things: to visit the sick, to follow the funeral (of a dead believer), to invoke the Mercy of Allah upon one who sneezes (i.e., by saying to him: Yarhamuk- Allah), to support the weak, to help the oppressed, to promote the greeting of 'As-Salamu 'Alaikum', and to help those who swear to do something to keep their oaths.

[Al-Bukhari and Muslim].

Commentary: Muslims have obligations towards one another. The fulfillment of this social responsibility creates among them mutual love, a sense of cohesion and feelings of respect for one another.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩১: সালাম দেওয়ার গুরুত্ব ও তা ব্যাপকভাবে প্রচার করার নির্দেশ

৪/৮৫২। আবূ হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ’’তোমরা ঈমানদার না হওয়া পর্যন্ত জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না। আর যতক্ষণ না তোমাদের পারস্পরিক ভালোবাসা গড়ে উঠবে, ততক্ষণ পর্যন্ত তোমরা প্রকৃত ঈমানদার হতে পারবে না। আমি কি তোমাদেরকে এমন একটি কাজ বলে দেব না, যা করলে তোমরা একে অপরকে ভালবাসতে লাগবে? (তা হচ্ছে) তোমরা আপোসের মধ্যে সালাম প্রচার কর।’’ (মুসলিম)[1]

(131) بَابُ فَضْلِ السَّلَامِ وَالْأَمْرِ بِإِفْشَائِهِ

وَعَنْ أَبِي هُرَيرَةَ رضي الله عنه، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « لاَ تَدْخُلُوا الجَنَّةَ حَتَّى تُؤمِنُوا، وَلاَ تُؤْمِنُوا حَتَّى تَحَابُّوا، أوَلاَ أدُلُّكُمْ عَلَى شَيْءٍ إِذَا فَعَلْتُمُوهُ تَحَابَبْتُمْ ؟ أَفْشُوا السَّلاَمَ بَيْنَكُمْ ». رواه مسلم

وعن أبي هريرة رضي الله عنه، قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « لا تدخلوا الجنة حتى تؤمنوا، ولا تؤمنوا حتى تحابوا، أولا أدلكم على شيء إذا فعلتموه تحاببتم ؟ أفشوا السلام بينكم ». رواه مسلم

(131) Chapter: The Excellence of Promoting Greetings


Abu Hurairah (May Allah be pleased with him) reported:
The Messenger of Allah (ﷺ) said, "By Him in Whose Hand is my life! You will not enter Jannah until you believe, and you will not believe until you love one another. Shall I inform you of something which, if you do, you will love one another? Promote greetings amongst yourselves."

[Muslim].


Commentary: Muslims have obligations towards one another. The fulfillment of this social responsibility creates among them mutual love, a sense of cohesion and feelings of respect for one another.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩১: সালাম দেওয়ার গুরুত্ব ও তা ব্যাপকভাবে প্রচার করার নির্দেশ

৫/৮৫৩। আবূ ইউসুফ আব্দুল্লাহ ইবনে সালাম রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি, ’’হে লোক সকল! তোমরা সালাম প্রচার কর, (ক্ষুধার্তকে) অন্নদান কর, আত্মীয়তার বন্ধন অটুট রাখ এবং লোকে যখন (রাতে) ঘুমিয়ে থাকে, তখন তোমরা নামায পড়। তাহলে তোমরা নিরাপদে ও নির্বিঘ্নে জান্নাতে প্রবেশ করবে।’’ (তিরমিযী হাসান সহীহ) [1]

(131) بَابُ فَضْلِ السَّلَامِ وَالْأَمْرِ بِإِفْشَائِهِ

وَعَنْ أَبي يُوسُفَ عَبدِ اللهِ بنِ سَلاَمٍ رضي الله عنه، قَالَ: سَمِعْتُ رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، يَقُولُ: « يَا أيُّهَا النَّاسُ، أَفْشُوا السَّلاَمَ، وَأطْعِمُوا الطَّعَامَ، وَصِلُوا الأرْحَامَ، وَصَلُّوا والنَّاسُ نِيَامٌ، تَدْخُلُوا الجَنَّةَ بِسَلاَم ». رواه الترمذي، وقال: حديث حسن صحيح »

وعن أبي يوسف عبد الله بن سلام رضي الله عنه، قال: سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، يقول: « يا أيها الناس، أفشوا السلام، وأطعموا الطعام، وصلوا الأرحام، وصلوا والناس نيام، تدخلوا الجنة بسلام ». رواه الترمذي، وقال: حديث حسن صحيح »

(131) Chapter: The Excellence of Promoting Greetings


'Abdullah bin Salam (May Allah be pleased with him) reported:
I heard the Messenger of Allah (ﷺ) saying, "O people, exchange greetings of peace (i.e., say: As-Salamu 'Alaikum to one another), feed people, strengthen the ties of kinship, and be in prayer when others are asleep, you will enter Jannah in peace."

[At- Tirmidhi].


Commentary: All these habits and practices are indispensable to a believer because each one of them leads to Jannah with the first people to enter it without being punished in Hell first.


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩১: সালাম দেওয়ার গুরুত্ব ও তা ব্যাপকভাবে প্রচার করার নির্দেশ

৬/৮৫৪। তুফাইল ইবনে উবাই ইবনে কা’ব হতে বর্ণিত, তিনি আব্দুল্লাহ ইবনে উমার রাদিয়াল্লাহু ’আনহু-এর কাছে আসতেন এবং সকালে তাঁর সঙ্গে বাজার যেতেন। তিনি বলেন, ’যখন আমরা সকালে বাজারে যেতাম, তখন তিনি প্রত্যেক খুচরা বিক্রেতা, স্থায়ী ব্যবসায়ী, মিসকীন, তথা অন্য কোন ব্যক্তির নিকট দিয়ে অতিক্রম করার সময় তাকে সালাম দিতেন।’ তুফাইল বলেন, সুতরাং আমি একদিন (অভ্যাসমত) আব্দুল্লাহ ইবনে উমার রাদিয়াল্লাহু ’আনহু-এর নিকট গেলাম।

তিনি আমাকে তাঁর সঙ্গে বাজারে যেতে বললেন। আমি বললাম, ’আপনি বাজার গিয়ে কী করবেন? আপনি তো বেচা-কেনার জন্য কোথাও থামেন না, কোন পণ্য সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেন না, তার দর-দাম জানতে চান না এবং বাজারের কোন মজলিসে বসেনও না। আমি বলছি, এখানে আমাদের সাথে বসে যান, এখানেই কথাবার্তা বলি।’ (তুফাইলের ভুঁড়ি মোটা ছিল, সেই জন্য) তিনি বললেন, ’ওহে ভুঁড়িমোটা! আমরা সকাল বেলায় বাজারে একমাত্র সালাম পেশ করার উদ্দেশ্যে যাই; যার সাথে আমাদের সাক্ষাৎ হয়, আমরা তাকে সালাম দেই।’ (মুঅত্ত্বা মালেক, বিশুদ্ধ সূত্রে)[1]

(131) بَابُ فَضْلِ السَّلَامِ وَالْأَمْرِ بِإِفْشَائِهِ

وَعَنْ الطُّفَيْلِ بنِ أُبَيِّ بنِ كَعبٍ: أنَّه كَانَ يَأتِي عَبدَ اللهِ بنَ عُمَرَ، فَيَغدُو مَعَهُ إِلَى السُّوقِ، قَالَ: فَإِذَا غَدَوْنَا إِلَى السُّوقِ، لَمْ يَمُرَّ عَبدُ الله عَلَى سَقَّاطٍ وَلاَ صَاحِبِ بَيْعَةٍ، وَلاَ مِسْكِينٍ، وَلاَ أحَدٍ إِلاَّ سَلَّمَ عَلَيْهِ، قَالَ الطُّفَيْلُ: فَجِئْتُ عَبدَ اللهِ بنَ عُمَرَ يَوْماً، فَاسْتَتْبَعَنِي إِلَى السُّوقِ، فَقُلْتُ لَهُ: مَا تَصْنَعُ بِالسُّوقِ، وَأنْتَ لا تَقِفُ عَلَى البَيْعِ، وَلاَ تَسْأَلُ عَنِ السِّلَعِ، وَلاَ تَسُومُ بِهَا، وَلاَ تَجْلِسُ في مَجَالِسِ السُّوقِ ؟ وَأقُولُ: اجْلِسْ بِنَا هاهُنَا نَتَحَدَّث، فَقَالَ: يَا أَبَا بَطْنٍ ـ وَكَانَ الطفَيْلُ ذَا بَطْنٍ ـ إنَّمَا نَغْدُو مِنْ أجْلِ السَّلاَمِ، فنُسَلِّمُ عَلَى مَنْ لَقِيْنَاهُ . رواه مالك في المُوطَّأ بإسنادٍ صحيح

وعن الطفيل بن أبي بن كعب: أنه كان يأتي عبد الله بن عمر، فيغدو معه إلى السوق، قال: فإذا غدونا إلى السوق، لم يمر عبد الله على سقاط ولا صاحب بيعة، ولا مسكين، ولا أحد إلا سلم عليه، قال الطفيل: فجئت عبد الله بن عمر يوما، فاستتبعني إلى السوق، فقلت له: ما تصنع بالسوق، وأنت لا تقف على البيع، ولا تسأل عن السلع، ولا تسوم بها، ولا تجلس في مجالس السوق ؟ وأقول: اجلس بنا هاهنا نتحدث، فقال: يا أبا بطن ـ وكان الطفيل ذا بطن ـ إنما نغدو من أجل السلام، فنسلم على من لقيناه . رواه مالك في الموطأ بإسناد صحيح

(131) Chapter: The Excellence of Promoting Greetings


At-Tufail bin Ubayy bin Ka'b (May Allah be pleased with him) reported:
I used to visit 'Abdullah bin 'Umar (May Allah be pleased with them) in the morning and accompany him to the market. 'Abdullah offered greetings of peace to every one he met on the way, be they sellers of petty goods, traders or poor people. One day when I came to him, he asked me to accompany him to the market. I said to him: "What is the point of your going to the market when you do not sell, nor ask about articles, nor offer a price for them, nor sit down with any company of people. Let us sit down here and talk." He replied: "O Abu Batn (belly)! (Tufail had a large belly), we go to the market to greet everyone we meet."

[Malik].


Commentary: This Hadith highlights `Abdullah bin `Umar's passion for promoting Salam which is a practice of Sunnah. Secondly, we can call a person by his epithetic name provided he is not offended by it.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩২: সালাম দেওয়ার পদ্ধতি

প্রথমে যে সালাম দেবে তার এরূপ বলা (উচিত), ’আসসালামু আলাইকুম অরহমাতুল্লাহি অবারাকাতুহ’। এটা মুস্তাহাব। সে বহুবচন সর্বনাম ব্যবহার করবে; যদিও যাকে সালাম দেওয়া হয় সে একা হোক না কেন। আর সালামের উত্তরদাতা বলবে ’অআলাইকুমুস সালামু অরহমাতুল্লাহি অবারাকাতুহ, অর্থাৎ সে শুরুতে সংযোজক অব্যয় ’অ’ বা ’ওয়া’ শব্দ ব্যবহার করবে।


১/৮৫৫। ইমরান ইবনে হুসাইন রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, একটি লোক নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট এসে এভাবে সালাম করল ’আসসালামু আলাইকুম’ আর নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার জবাব দিলেন। অতঃপর লোকটি বসে গেলে তিনি বললেন, ’’ওর জন্য দশটি নেকী।’’ তারপর দ্বিতীয় ব্যক্তি এসে ’আসসালামু আলাইকুম অরহমাতুল্লাহ’ বলে সালাম পেশ করল।

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার সালামের উত্তর দিলেন এবং লোকটি বসলে তিনি বললেন, ’’ওর জন্য বিশটি নেকী।’’ তারপর আর একজন এসে ’আসসালামু আলাইকুম অরহমাতুল্লাহি অবারাকাতুহ’ বলে সালাম দিল। তিনি তার জবাব দিলেন। অতঃপর সে বসলে তিনি বললেন, ’’ওর জন্য ত্রিশটি নেকী।’’ (আবূ দাউদ, তিরমিযী হাসান সূত্রে)[1]

(132) بَابُ كَيْفِيَةِ السَّلَامِ

عَن عِمْرَانَ بنِ الحُصَينِ رَضِيَ اللهُ عَنهُمَا، قَالَ: جَاءَ رَجُلٌ إِلَى النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم، فَقَالَ: السَّلاَمُ عَلَيْكُمْ، فَرَدَّ عَلَيْهِ ثُمَّ جَلَسَ، فَقَالَ النبيُّ صلى الله عليه وسلم: عَشْرٌ ثُمَّ جَاءَ آخَرُ، فَقَالَ: السَّلاَمُ عَلَيْكُمْ وَرَحْمَةُ اللهِ، فَرَدَّ عَلَيْهِ فَجَلَسَ، فَقَالَ: عِشْرُونَ ثُمَّ جَاءَ آخَرُ، فَقَالَ: السَّلاَمُ عَلَيْكُمْ وَرَحْمَةُ الله وَبَركَاتُهُ، فَرَدَّ عَلَيْهِ فَجَلَسَ، فَقَالَ: ثَلاثُونَ رواه أَبُو داود والترمذي، وقال: حديث حسن

عن عمران بن الحصين رضي الله عنهما، قال: جاء رجل إلى النبي صلى الله عليه وسلم، فقال: السلام عليكم، فرد عليه ثم جلس، فقال النبي صلى الله عليه وسلم: عشر ثم جاء آخر، فقال: السلام عليكم ورحمة الله، فرد عليه فجلس، فقال: عشرون ثم جاء آخر، فقال: السلام عليكم ورحمة الله وبركاته، فرد عليه فجلس، فقال: ثلاثون رواه أبو داود والترمذي، وقال: حديث حسن

(132) Chapter: Words to be Used for Offering Greetings


It is recommended for the one offering greetings to say: `As-Salamu Alaikum wa Rahmatullahi wa Barakatuhu'. The reply is `Wa `Alaikum us-Salamu wa Rahmatullahi wa Barakatuhu.


'Imran bin Husain (May Allah be pleased with them) reported:
A man came to the Prophet (ﷺ) and said: "As-Salamu 'Alaikum (may you be safe from evil). Messenger of Allah (ﷺ) responded to his greeting and the man sat down. The Prophet (ﷺ) said, "Ten (meaning the man had earned the merit of ten good acts)." Another one came and said: "As-Salamu 'Alaikum wa Rahmatullah (may you be safe from evil, and Mercy of Allah be upon you)." Messenger of Allah (ﷺ) responded to his greeting and the man sat down. Messenger of Allah (ﷺ) said, "Twenty." A third one came and said: "As-Salamu 'Alaikum wa Rahmatullahi wa Barakatuhu (may you be safe from evil, and the Mercy of Allah and His Blessings be upon you)." Messenger of Allah (ﷺ) responded to his greeting and the man sat down. Messenger of Allah (ﷺ) said, "Thirty."

[Abu Dawud and At- Tirmidhi].

Commentary: This Hadith shows that we can earn ten-fold good rewards by greeting a person in the Islamic way. There will be a further ten-fold addition to it if we say, "As-Salamu `Alaikum wa Rahmatullah". may you be safe from evil, and the Mercy of Allah be upon you). And if we say, "As-Salamu `Alaikum wa Rahmatullahi wa Barakatuhu'' may you be safe from evil, and the Mercy of Allah and His Blessings be upon you), thirty-fold good reward comes to us. But Ahadith are silent on increasing more words to Salam. So this much will suffice.


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩২: সালাম দেওয়ার পদ্ধতি

২/৮৫৬। আয়েশা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহা হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, একদা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাকে বললেন, ’’এই জিব্রীল (জিব্রাইল/জিবরাঈল) আলাইহিস সালাম তোমাকে সালাম পেশ করছেন।’’ তিনি বলেন, আমিও উত্তরে বললাম, ’অআলাইহিস সালামু ওয়ারহমাতুল্লহি অবারাকাতুহ।’ (বুখারী ও মুসলিম) [1]

এই গ্রন্থদ্বয়ের কোন কোন বর্ণনায় ’অবারাকাতুহ’ শব্দ এসেছে, আবার কোন কোন বর্ণনায় তা আসেনি। তবুও নির্ভরযোগ্য বর্ণনাকারীর অতিরিক্ত বর্ণনা গ্রহণীয়।

(132) بَابُ كَيْفِيَةِ السَّلَامِ

وَعَنْ عَائِشَةَ رَضِيَ اللهُ عَنهَا، قَالَتْ: قَالَ لِي رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « هَذَا جِبريلُ يَقْرَأُ عَلَيْكِ السَّلاَمَ» قَالَتْ: قُلْتُ: وَعَلَيْهِ السَّلاَمُ وَرَحْمَةُ اللهِ وَبَرَكَاتُهُ . متفقٌ عَلَيْهِ

وعن عائشة رضي الله عنها، قالت: قال لي رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « هذا جبريل يقرأ عليك السلام» قالت: قلت: وعليه السلام ورحمة الله وبركاته . متفق عليه

(132) Chapter: Words to be Used for Offering Greetings


'Aishah (May Allah be pleased with her) reported:
Messenger of Allah (ﷺ) said to me, "This is Jibril (Gabriel) who is conveying you greetings of peace." I responded: "Wa 'Alaihis-Salamu wa Rahmatullahi wa Barakatuhu (may he be safe from evil, and the Mercy of Allah and His Blessings be upon him)."

[Al-Bukhari and Muslim].

Commentary: This Hadith affirms the excellence of `Aishah (May Allah be pleased with him). It also tells us how to respond to the Salam of a third person, that is, we should say, "Wa `Alaihis-Salamu wa Rahmatullahi wa Barakatuhu.'


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩২: সালাম দেওয়ার পদ্ধতি

৩/৮৫৭। আনাস রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন কোন কথা বলতেন, তখন তা তিনবার বলতেন; যাতে তাঁর কথা বুঝতে পারা যায়। আর যখন কোন গোষ্ঠীর কাছে আসতেন তখনও তিনি তিনবার করে সালাম পেশ করতেন। (বুখারী) [1]

এ বিধান সেই ক্ষেত্রে প্রযোজ্য যে ক্ষেত্রে জনতার সংখ্যা খুব বেশী হবে।

(132) بَابُ كَيْفِيَةِ السَّلَامِ

وَعَنْ أَنَسٍ رضي الله عنه: أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم كَانَ إِذَا تَكَلَّمَ بِكَلِمَةٍ أعَادَهَا ثَلاثَاً حَتَّى تُفهَمَ عَنْهُ، وَإِذَا أتَى عَلَى قَوْمٍ فَسَلَّمَ عَلَيْهِمْ سَلَّمَ عَلَيْهِمْ ثَلاَثاً . رواه البخاري . وهذا مَحْمُولٌ عَلَى مَا إِذَا كَانَ الجَمْعُ كَثِيراً.

وعن أنس رضي الله عنه: أن النبي صلى الله عليه وسلم كان إذا تكلم بكلمة أعادها ثلاثا حتى تفهم عنه، وإذا أتى على قوم فسلم عليهم سلم عليهم ثلاثا . رواه البخاري . وهذا محمول على ما إذا كان الجمع كثيرا.

(132) Chapter: Words to be Used for Offering Greetings


Anas (May Allah be pleased with him) reported the Prophet (ﷺ) used to repeat his words thrice so that the meaning thereof would be fully understood, and whenever he came upon a gathering of people, he would greet them. He would repeat Salam thrice.

[Al- Bukhari].

Commentary: This Hadith tells us about one aspect of the Prophet's excellent manners that he would take due care of showing regard for the sentiments of people. The whole of a gathering is not supposed to hear the Salam of somebody and respond to him. A single person can represent the gathering in this regard. Yet, it was characteristic benevolence of the Messenger of Allah (PBUH) which prompted him to repeat his saying "As-Salamu `Alaikum'' thrice so that everybody would hear it and may not have a feeling of being neglected.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩২: সালাম দেওয়ার পদ্ধতি

৪/৮৫৮। মিক্বদাদ রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি স্বীয় দীর্ঘ হাদীসে বলেন, আমরা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর জন্য তাঁর অংশের দুধ রেখে দিতাম। তিনি রাতের বেলায় আসতেন এবং এমনভাবে সালাম দিতেন যে, তাতে কোন ঘুমন্ত ব্যক্তিকে জাগিয়ে দিতেন না এবং জাগ্রত ব্যক্তিদেরকে শুনাতেন। সুতরাং নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম (তাঁর অভ্যাসমত) এসে সালাম দিলেন, যেমন তিনি সালাম দিতেন। (মুসলিম) [1]

(132) بَابُ كَيْفِيَةِ السَّلَامِ

وَعَنْ المِقْدَادِ رضي الله عنه في حَدِيثهِ الطَّوِيلِ، قَالَ: كُنَّا نَرْفَعُ للنَّبيِّ صلى الله عليه وسلم نَصِيبَهُ مِنَ اللَّبَنِ، فَيَجِيءُ مِنَ اللَّيْلِ، فَيُسَلِّمُ تَسْلِيماً لاَ يُوقِظُ نَائِماً، وَيُسْمِعُ اليَقْظَانَ، فَجَاءَ النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم فَسَلَّمَ كَمَا كَانَ يُسَلِّمُ . رواه مسلم

وعن المقداد رضي الله عنه في حديثه الطويل، قال: كنا نرفع للنبي صلى الله عليه وسلم نصيبه من اللبن، فيجيء من الليل، فيسلم تسليما لا يوقظ نائما، ويسمع اليقظان، فجاء النبي صلى الله عليه وسلم فسلم كما كان يسلم . رواه مسلم

(132) Chapter: Words to be Used for Offering Greetings


Al-Miqdad (May Allah be pleased with him) reported in course of a long Hadith:
We used to reserve for the Prophet (ﷺ) his share of the milk, and he would come at night and offer greetings in such a manner as did not disturb those asleep and was heard only by those who were awake. In fact, the Prophet (ﷺ) came and offered greetings as usual.

[Muslim].


Commentary: Herein, we are told how to offer Salam to people when some of them are asleep while others are awake. Our voice should be so low so as not to disturb those who are asleep and to give a chance to those who are awake to respond to it.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩২: সালাম দেওয়ার পদ্ধতি

৫/৮৫৯। আসমা বিনতে য়্যাযীদ রাদিয়াল্লাহু ‘আনহা হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, একদা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের একদল মহিলার নিকট দিয়ে পার হওয়ার সময় আমাদেরকে সালাম দিলেন। (আবূ দাঊদ)[1]

(প্রকাশ থাকে যে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর হাতের ইশারায় মহিলাদেরকে সালাম দেওয়ার তিরমিযীর হাদীসটি সহীহ নয়।)

(132) بَابُ كَيْفِيَةِ السَّلَامِ

وَعَن أَسْمَاءَ بِنْتِ يَزِيدَ رَضِيَ اللهُ عَنهَا، قَالَتْ: مَرَّ عَلَيْنَا النَّبِىُّ صلى الله عليه وسلم فِى نِسْوَةٍ فَسَلَّمَ عَلَيْنَا. رواه أبوداود

وعن أسماء بنت يزيد رضي الله عنها، قالت: مر علينا النبى صلى الله عليه وسلم فى نسوة فسلم علينا. رواه أبوداود

(132) Chapter: Words to be Used for Offering Greetings


Asma bint Yazid (May Allah be pleased with her) reported:
The Prophet (ﷺ) passed by us when we were with a party of women, and he greeted us.

[Abu Dawud].

Commentary: To offer As-Salam by the gesture of hand from a distance is forbidden in Islam because it is the way of non-Muslims. However, it is allowed if words are also uttered along with it. Secondly, Messenger of Allah (PBUH) could greet women because he was sinless and permanently stood under Allah's Protection. Yet, it is not permissible to other men for the fear of provoking temptation. But this Hadith can be carried into effect in case one feels that no temptation and evil will be involved in it. For example, a man can greet aged and respectable women. However, Salam to young women is not allowed as it can give birth to wickedness.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩২: সালাম দেওয়ার পদ্ধতি

৬/৮৬০। আবূ উমামাহ রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ’’আল্লাহর সর্বাধিক নিকটবর্তী মানুষ সেই, যে প্রথমে সালাম করে।’’ (আবূ দাঊদ সহীহ সনদ যোগে, তিরমিযীও অনুরূপ বর্ণনা করেছেন ও বলেছেন হাদীসটি হাসান। এটি পরবর্তীতে ৮৬৩ নম্বরে উল্লেখ করা হয়েছে।)[1]

(132) بَابُ كَيْفِيَةِ السَّلَامِ

وَعَنْ أَبي أُمَامَةَ رضي الله عنه، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: إِنَّ أوْلَى النَّاسِ بِاللهِ مَنْ بَدَأَهُمْ بالسَّلاَمِ رواه أَبُو داود بإسنادٍ جيدٍ، ورواه الترمذي بنحوه وقال: حديثٌ حسن . وَقَدْ ذُكر بعده

وعن أبي أمامة رضي الله عنه، قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: إن أولى الناس بالله من بدأهم بالسلام رواه أبو داود بإسناد جيد، ورواه الترمذي بنحوه وقال: حديث حسن . وقد ذكر بعده

হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩২: সালাম দেওয়ার পদ্ধতি

৭/৮৬১। আবূ জুরাই হুজাইমী রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট হাযির হয়ে বললাম, ’আলাইকাস সালাম’ ইয়া রাসূলুল্লাহ! তিনি বললেন, ’’আলাইকাস সালাম’ বলো না। কেননা, ’আলাইকাস সালাম’ হচ্ছে মৃত ব্যক্তিদেরকে জানানো অভিবাদন বাক্য।’’ (আবু দাঊদ, তিরমিযী হাসান সহীহ, ইতোপূর্বে সম্পূর্ণ হাদীসটি ৮০০ নম্বরে গত হয়েছে।) [1]

(132) بَابُ كَيْفِيَةِ السَّلَامِ

وَعَنْ أَبي جُرَيٍّ الهُجَيْمِيِّ رضي الله عنه، قَالَ: أتيتُ رَسُول اللهِ صلى الله عليه وسلم، فَقُلتُ: عَلَيْكَ السَّلامُ يَا رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم! قَالَ: لاَ تَقُلْ عَلَيْكَ السَّلامُ ؛ فَإِنَّ عَلَيْكَ السَّلاَمُ تَحِيَّةُ المَوتَى . رواه أَبُو داود والترمذي، وقال: حديث حسن صحيح ، وَقَدْ سَبَقَ بِطُولِهِ.

وعن أبي جري الهجيمي رضي الله عنه، قال: أتيت رسول الله صلى الله عليه وسلم، فقلت: عليك السلام يا رسول الله صلى الله عليه وسلم! قال: لا تقل عليك السلام ؛ فإن عليك السلام تحية الموتى . رواه أبو داود والترمذي، وقال: حديث حسن صحيح ، وقد سبق بطوله.

(132) Chapter: Words to be Used for Offering Greetings


Abu Juraiy Al-Hujaimi (May Allah be pleased with him) reported:
I saw Messenger of Allah (ﷺ) and said: "Alaikas-Salamu ya Rasulallah! (Upon you be peace, O Messenger of Allah)!" He said, "Do not say: 'Alaikas-Salamu (Upon you be peace).' This is the Salam to the dead."

[Abu Dawud and At-Tirmidhi].


Commentary: This is part of a long Hadith which has been mentioned earlier on. Refer to Hadith 796 and the commentary following it.


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩৩: সালামের বিভিন্ন আদব-কায়দা

১/৮৬২। আবূ হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু ’আনহু থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ’’আরোহী পায়ে হাঁটা ব্যক্তিকে, পায়ে হাঁটা ব্যক্তি বসে থাকা ব্যক্তিকে এবং অল্প সংখ্যক লোক অধিক সংখ্যক লোককে সালাম দেবে।’’ (বুখারী-মুসলিম) [1]

বুখারীর অন্য এক বর্ণনায় আছে, ’’ছোট বড়কে সালাম দেবে।’’

(133) بَابُ آدَابِ السَّلَامِ

عَن أَبِي هُرَيرَةَ رضي الله عنه: أنَّ رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، قَالَ: يُسَلِّمُ الرَّاكِبُ عَلَى المَاشِي، وَالمَاشِي عَلَى القَاعِدِ، وَالقَليلُ عَلَى الكَثِيرِ . متفقٌ عَلَيْهِ، وَفِي رِوَايَةٍ لِلبُخَارِي: وَالصَّغِيرُ عَلَى الكَبِيرِ

عن أبي هريرة رضي الله عنه: أن رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، قال: يسلم الراكب على الماشي، والماشي على القاعد، والقليل على الكثير . متفق عليه، وفي رواية للبخاري: والصغير على الكبير

(133) Chapter: The Etiquette of Offering Greetings


Abu Hurairah (May Allah be pleased with him) reported:
Messenger of Allah (ﷺ) said, 'A rider should greet a pedestrian; a pedestrian should greet one who is sitting; and a small group should greet a large group (of people).''


[Al-Bukhari and Muslim].

The narration in Al-Bukhari adds: Messenger of Allah (ﷺ) said, "The young should greet the elderly.''

Commentary: The greeting of As-Salamu Alaikum should be uttered according to the prescribed way. It is the situations under reference and not the grades which will be taken into consideration in this respect.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩৩: সালামের বিভিন্ন আদব-কায়দা

২/৮৬৩। আবূ উমামাহ সুদাই ইবনে আজলান বাহেলী রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ’’লোকদের মধ্যে সবচেয়ে বেশী আল্লাহর নিকটবর্তী সেই, যে লোকদেরকে প্রথমে সালাম করে।’’ (আবূ দাঊদ উত্তম সূত্রে) [1]

তিরমিযীও আবূ উমামাহ কর্তৃক বর্ণনা করেছেন, তিনি বলেন, জিজ্ঞাসা করা হল, ’হে আল্লাহর রাসূল! দু’জনের সাক্ষাৎকালে তাদের মধ্যে কে প্রথমে সালাম দেবে?’ তিনি বললেন, ’’যে মহান আল্লাহর সর্বাধিক নিকটবর্তী হবে।’’ (তিরমিযী বলেন, হাদীসটি হাসান)

(133) بَابُ آدَابِ السَّلَامِ

وَعَنْ أَبي أُمَامَةَ صُدَيِّ بنِ عَجلاَنَ البَاهِلِي رضي الله عنه، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « إنَّ أَوْلى النَّاسِ بِاللهِ مَنْ بَدَأهُمْ بِالسَّلامِ ». رواه أَبُو داود بإسنادٍ جيدٍ .
ورواه الترمذي عَن أَبي أُمَامَةَ رضي الله عنه، قِيلَ: يَا رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم، الرَّجُلاَنِ يَلْتَقِيَانِ أَيُّهُمَا يَبْدَأُ بِالسَّلاَمِ ؟ قَالَ: « أَوْلاَهُمَا بِاللهِ تَعَالَى . قَالَ الترمذي: «هَذَا حديث حسن

وعن أبي أمامة صدي بن عجلان الباهلي رضي الله عنه، قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « إن أولى الناس بالله من بدأهم بالسلام ». رواه أبو داود بإسناد جيد . ورواه الترمذي عن أبي أمامة رضي الله عنه، قيل: يا رسول الله صلى الله عليه وسلم، الرجلان يلتقيان أيهما يبدأ بالسلام ؟ قال: « أولاهما بالله تعالى . قال الترمذي: «هذا حديث حسن

(133) Chapter: The Etiquette of Offering Greetings


Abu Umamah Sudaiy bin `Ajlan Al-Bahili (May Allah be pleased with him) reported:
The Messenger of Allah (ﷺ) said, "The person nearest to Allah is one who is the first to offer greeting."

[Abu Dawud].

The narration in At-Tirmidhi is: The Messenger of Allah (ﷺ) was asked: "O Messenger of Allah! When two persons meet, who should greet the other first?'' The Messenger of Allah (ﷺ) said, "The person nearest to Allah (i.e., one who is more obedient and therefore closer to Allah will say: As-Salam first."


Commentary: The degree of a man's humbleness and modesty will be measured by the degree of his nearness to Allah. One who is nearer to Allah is always the first to offer As-Salam to others, while others stick to their stuck-up behaviour.


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩৪: দ্বিতীয়বার সত্বর সাক্ষাৎ হলেও পুনরায় সালাম দেওয়া মুস্তাহাব, যেমন কোথাও প্রবেশ করার পর বের হয়ে গিয়ে পুনরায় তৎক্ষণাৎ সেখানে প্রবেশ করলে কিংবা দু’জনের মাঝে কোন গাছ তথা অনুরূপ কোন জিনিসের আড়াল হলে, তারপর আবার দেখা হলে পুনরায় সালাম দেওয়া মুস্তাহাব

১/৮৬৪। আবূ হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু ’আনহু কর্তৃক বর্ণিত, নামায ভুলকারীর হাদীসে এসেছে যে, সে ব্যক্তি এসে নামায পড়ল। অতঃপর নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট এসে তাঁকে সালাম দিল। তিনি তার সালামের জবাব দিয়ে বললেন, ’’ফিরে যাও, এবং নামায পড়। কেননা, তোমার নামায পড়া হয়নি।’’ কাজেই সে ফিরে গিয়ে আবার নামায পড়ল। তারপর পুনরায় এসে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে সালাম দিল। এভাবে সে তিনবার করল। (বুখারী ও মুসলিম) [1]

(134) باب استحباب إعادة السلام على من تكرر لقاؤه على قرب بأن دخل ثم خرج ثم دخل في الحال، أو حال بينهما شجرة ونحوها

عَن أَبِي هُرَيرَةَ رضي الله عنه فِي حَدِيثِ المُسِيءِ صَلاَتَهُ: أَنَّهُ جَاءَ فَصَلَّى، ثُمَّ جَاءَ إِلَى النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم، فَسَلَّمَ عَلَيْهِ، فَرَدَّ عَلَيْهِ السَّلاَمَ، فَقَالَ: « ارْجِعْ فَصَلِّ فَإِنَّكَ لَمْ تُصَلِّ » فَرَجَعَ فَصَلَّى، ثُمَّ جَاءَ فَسَلَّمَ عَلَى النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم، حَتَّى فَعَلَ ذَلِكَ ثَلاثَ مَرَّاتٍ . متفقٌ عَلَيْهِ

عن أبي هريرة رضي الله عنه في حديث المسيء صلاته: أنه جاء فصلى، ثم جاء إلى النبي صلى الله عليه وسلم، فسلم عليه، فرد عليه السلام، فقال: « ارجع فصل فإنك لم تصل » فرجع فصلى، ثم جاء فسلم على النبي صلى الله عليه وسلم، حتى فعل ذلك ثلاث مرات . متفق عليه

(134) Chapter: The Excellence of Greeting the Acquaintance Repeatedly


Abu Hurairah (May Allah be pleased with him)reported in the Hadith in respect of the person who was at fault in performing his Salat (prayer):
He came to the Prophet (ﷺ) and greeted him. The Prophet (ﷺ) responded to the greeting and said, "Go back and repeat your Salat because you have not performed the Salat (properly).'' He again performed Salat as he had prayed before and came to the Prophet (ﷺ) and greeted him. The Prophet (ﷺ) responded to the greetings (and repeated his words to him). This act of repeating (the Salat and the Salam) was done thrice.


[Al-Bukhari and Muslim].


Commentary: This Hadith tells us that one can greet others after short intervals.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩৪: দ্বিতীয়বার সত্বর সাক্ষাৎ হলেও পুনরায় সালাম দেওয়া মুস্তাহাব, যেমন কোথাও প্রবেশ করার পর বের হয়ে গিয়ে পুনরায় তৎক্ষণাৎ সেখানে প্রবেশ করলে কিংবা দু’জনের মাঝে কোন গাছ তথা অনুরূপ কোন জিনিসের আড়াল হলে, তারপর আবার দেখা হলে পুনরায় সালাম দেওয়া মুস্তাহাব

২/৮৬৫। উক্ত রাবী (আবূ হুরায়রাহ রা.) হতেই বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ’’যখন কেউ তার মুসলিম ভাইয়ের সাথে দেখা করবে, তখন সে যেন তাকে সালাম দেয়। অতঃপর যদি তাদের দু’জনের মাঝে গাছ বা দেওয়াল অথবা পাথর আড়াল হয়, তারপর আবার সাক্ষাৎ হয়, তাহলে সে যেন আবার সালাম দেয়।’’ (আবূ দাঊদ) [1]

(134) باب استحباب إعادة السلام على من تكرر لقاؤه على قرب بأن دخل ثم خرج ثم دخل في الحال، أو حال بينهما شجرة ونحوها

وعنه عن رسول الله صلى الله عليه وسلم، قال‏:‏ ‏ "‏إذا لقي أحدكم أخاه، فليسلم عليه، فإن حالت بينهما شجرة، أو جدار، أو حجر، ثم لقيه، فليسلم عليه‏"‏ ‏(‏‏(‏رواه أبو داود‏)‏‏)‏‏.‏

وعنه عن رسول الله صلى الله عليه وسلم، قال‏:‏ ‏ "‏إذا لقي أحدكم أخاه، فليسلم عليه، فإن حالت بينهما شجرة، أو جدار، أو حجر، ثم لقيه، فليسلم عليه‏"‏ ‏(‏‏(‏رواه أبو داود‏)‏‏)‏‏.‏

(134) Chapter: The Excellence of Greeting the Acquaintance Repeatedly


Abu Hurairah (May Allah be pleased with him) reported:
Messenger of Allah (ﷺ) said, "When one of you meets a brother (in Faith) he should greet him. Then if a tree or a wall or a stone intervenes between them and then he meets him again, he should greet him."

[Abu Dawud].

Commentary: This Hadith convincingly bears out the subject matter of the chapter.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩৫: নিজ গৃহে প্রবেশ করার সময় সালাম দেওয়া উত্তম

আল্লাহ বলেন,

﴿فَإِذَا دَخَلۡتُم بُيُوتٗا فَسَلِّمُواْ عَلَىٰٓ أَنفُسِكُمۡ تَحِيَّةٗ مِّنۡ عِندِ ٱللَّهِ مُبَٰرَكَةٗ طَيِّبَةٗۚ ﴾ [النور: ٦١]

অর্থাৎ “যখন তোমরা গৃহে প্রবেশ করবে তোমরা তোমাদের স্বজনদের প্রতি সালাম বলবে।” (সূরা নূর ৬১ আয়াত)


১/৮৬৬। আনাস রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, একদা আমাকে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, ’’হে বৎস! তোমার বাড়িতে যখন তুমি প্রবেশ করবে, তখন সালাম দাও, তাহলে তোমার ও তোমার পরিবারের জন্য তা বরকতময় হবে।’’ (ইমাম তিরমিযী হাসান সহীহ বলেছেন)[1]

(135) بَابُ اِسْتِحْبَابِ السَّلَامِ إِذَا دَخَلَ بَيْتَهُ

وَعَنْ أَنَسٍ رضي الله عنه، قَالَ: قَالَ لِي رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: يَا بُنَيَّ، إِذَا دَخَلْتَ عَلَى أهْلِكَ، فَسَلِّمْ، يَكُنْ بَرَكَةً عَلَيْكَ، وَعَلَى أهْلِ بَيْتِكَ . رواه الترمذي، وقال: حديث حسن صحيح

وعن أنس رضي الله عنه، قال: قال لي رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: يا بني، إذا دخلت على أهلك، فسلم، يكن بركة عليك، وعلى أهل بيتك . رواه الترمذي، وقال: حديث حسن صحيح

(135) Chapter: The Excellence of Greeting Upon Entering the House


Allah, the Exalted, says:
"But when you enter the houses, greet one another with a greeting from Allah (i.e., say: As-Salamu `Alaikum - may you be safe from evil), blessed and good.'' (24:61)

Anas bin Malik (May Allah be pleased with him) reported:
Messenger of Allah (ﷺ) said to me, "Dear son, when you enter your house, say As- Salamu 'Alaikum to your family, for it will be a blessing both to you and to your family."

[At-Tirmidhi].

Commentary: Many people, on returning home, feel belittled in saying As-Salamu `Alaikum to their household. In fact, As-Salam is a prayer for goodness, blessing and peace, and one should have no complex about it.


হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai'f)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩৬: শিশুদেরকে সালাম করা প্রসঙ্গে

১/ ৮৬৭। আনাস রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি কতিপয় শিশুর নিকট দিয়ে অতিক্রম করার সময় তাদেরকে সালাম দিলেন এবং বললেন, ’রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরূপ করতেন।’ (বুখারী ও মুসলিম) [1]

(136) بَابُ السَّلَامِ عَلَى الصِّبْيَانِ

عَن أَنَسٍ رضي الله عنه: أنَّهُ مَرَّ عَلَى صِبْيَانٍ، فَسَلَّمَ عَلَيْهِمْ، وَقَالَ: كَانَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم يَفْعَلُهُ. متفقٌ عَلَيْهِ

عن أنس رضي الله عنه: أنه مر على صبيان، فسلم عليهم، وقال: كان رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم يفعله. متفق عليه

(136) Chapter: Greeting Children


Anas (May Allah be pleased with him) reported that he passed by some children and greeted them. Then he said:
"Messenger of Allah (ﷺ) used to do the same."


[Al-Bukhari and Muslim].


Commentary: By greeting children, we please their hearts and also vent our modesty. Besides, the importance of As-Salam is unconsciously felt by them. Above all it is the Sunnah of the Messenger of Allah (PBUH) and so we are supposed to put it into practice.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings

পরিচ্ছেদঃ ১৩৭: নারী-পুরুষের পারস্পরিক সালাম

নিজ স্ত্রীকে স্বামীর সালাম দেওয়া, অনুরূপভাবে কোন পুরুষের তার ’মাহরাম’ (যার সাথে বৈবাহিক-সম্পর্ক চিরতরে নিষিদ্ধ এমন) মহিলাকে সালাম দেওয়া, অনুরূপ ফিতনা-ফাসাদের আশংকা না থাকলে ’গায়র মাহরাম’ (যার সাথে বৈবাহিক-সম্পর্ক কোন সময় বৈধ এমন) মহিলাদেরকে সালাম দেওয়া বৈধ। যেমন উক্ত মহিলাদেরও উক্ত পুরুষদেরকে ঐ শর্ত-সাপেক্ষে সালাম দেওয়া বৈধ।


১/৮৬৮। সাহল ইবনে সা’দ রাদিয়াল্লাহু ’আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, ’আমাদের মধ্যে এক মহিলা ছিল। অন্য বর্ণনায় আছে আমাদের একটি বুড়ি ছিল। সে বীট (কেটে) হাঁড়িতে রেখে তাতে কিছু যব দানা পিষে মিশ্রণ করত। অতঃপর আমরা যখন জুমআর নামায পড়ে ফিরে আসতাম, তখন তাকে সালাম দিতাম। আর সে আমাদের জন্য তা পেশ করত।’ (বুখারী) [1]

(137) بَابُ سَلَامِ الرَّجُلِ عَلٰى زَؤْجَتِهِ وَالْمَرْأَةِ مِنْ مَحَارِمِهِ وَعَلٰى أَجْنَبِيَّةٍ وَأَجْنَبِيَّاتٍ لَا يُخَافُ الْفِتْنَةُ بِهِنَّ وَسَلَامُهُنَّ بِهٰذَا الشَّرْطِ

عَن سَهلِ بنِ سَعدٍ رضي الله عنه، قَالَ: كَانَتْ فِينَا امْرَأةٌ ـ وفي رواية: كَانَتْ لَنَا عَجُوزٌ ـ تَأخُذُ مِنْ أصُولِ السِّلْقِ فَتَطْرَحُهُ فِي القِدْرِ، وَتُكَرْكِرُ حَبَّاتٍ مِنْ شَعِيرٍ، فَإذَا صَلَّيْنَا الْجُمُعَةَ، وَانْصَرَفْنَا، نُسَلِّمُ عَلَيْهَا، فَتُقَدِّمُهُ إلَيْنَا . رواه البخاري

عن سهل بن سعد رضي الله عنه، قال: كانت فينا امرأة ـ وفي رواية: كانت لنا عجوز ـ تأخذ من أصول السلق فتطرحه في القدر، وتكركر حبات من شعير، فإذا صلينا الجمعة، وانصرفنا، نسلم عليها، فتقدمه إلينا . رواه البخاري

(137) Chapter: A man sayinig salam to his wife or a mahram woman or non-mahrmam woman or women not fearing tribulation by them and giving them salam with this condition


Sahl bin Sa`d (May Allah be pleased with him) reported:
There was a woman among us who would put beet root in a pot and add to it some ground barley. She used to cook them together. On returning from the Friday prayer, we would greet her and she would offer it to us.


[Al-Bukhari].


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ সাহল বিন সা'দ (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৫/ সালামের আদব (كتاب السلام) The Book of Greetings
দেখানো হচ্ছেঃ থেকে ২০ পর্যন্ত, সর্বমোট ৫০ টি রেকর্ডের মধ্য থেকে পাতা নাম্বারঃ 1 2 3 পরের পাতা »