৩৯১

পরিচ্ছেদঃ সালামের পূর্বে সিজ্দা সাহ্উ করা।

৩৯১. কুতায়বা (রহঃ) ..... বনূ আবদিল মুত্তালিবের হালীফ (আশ্রিত) আবদুল্লাহ ইবনু বুহায়না আল-আসা’দী রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত যে, তিনি বলেনঃ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম একবার যোহরের সালাতে যেখানে বসার কথা সেখানে দাঁড়িয়ে গেলেন। এই ভুল করার জন্য সালাত শেষ করার পর সালামের পূর্বেই তিনি বসা অবস্থায় দুই সিজদা দিলেন। প্রত্যেক সিজদার সময় তাকবীর-ও বললেন। অন্যান্য মুসল্লিরাও তাঁর সঙ্গে দুই সিজদা করল। - ইবনু মাজাহ ১২০৬,১২০৭, বুখারি ও মুসলিম, তিরমিজী হাদিস নম্বরঃ ৩৯১ [আল মাদানী প্রকাশনী]

এই বিষয়ে আবদুর রহমান ইবনু আওফ রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকেও হাদীস বর্ণিত আছে। মুহাম্মাদ ইবনু বাশশার (রহঃ) মুহাম্মাদ ইবনু ইবরাহীম (রহঃ) থেকে বর্ণিত যে, তিনি বলেনঃ আবূ হুরায়রা এবং সাঈব আল-কারী রাদিয়াল্লাহু আনহুমা সালামের পূর্বে সিজদা সাহু করতেন। ইমাম আবূ ঈসা তিরমিযী (রহঃ) বলেনঃ ইবনু বুহায়না রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণিত হাদীসটি হাসান। কতক আলিম এতদনুসারে আমল করেছেন। এ হ’ল ইমাম শাফিঈ (রহঃ)-এরও অভিমত। তিনি সালামের পূর্বে সিজদা সাহু করতে হবে বলে মনে করেন। তিনি বলেনঃ এই হাদীসটি অপরাপর হাদীসগুলোর জন্য নাসিখ বা রহিতকারী বলে বিবেচ্য।

এই বিষয়ে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর শেষ আমল ছিল এইরূপই। ইমাম আহমদ ও ইসহাক (রহঃ) বলেনঃ যদি দুই রাকআতের ক্ষেত্রে কেউ উঠে যায়, তবে সে ইবনু বুহায়নার হাদীস অনুসারে সালামের পূর্বে সিজদা সাহু করবে। আবদুল্লাহ ইবনু বুহায়না হচ্ছেন আবদুল্লাহ ইবনু মালিক। মালিক তাঁর পিতা আর বুহায়না তাঁর মাতা। আলী ইবনু মাদীনী (রহঃ) থেকে ইসহাক ইবনু মানসূর এই কথা রিওয়ায়াত করেছেন। ইমাম আবূ ঈসা তিরমিযী (রহঃ) বলেনঃ সিজদা সাহু সালামের পূর্বে করা হবে না পরে করা হবে, এই বিষয়ে ফকীহদের মধ্যে মতভেদ রয়েছে।কেউ কেউ মনে করেন, সালামের পর সিজদা সাহু করতে হবে। এ হ’ল সুফইয়ান সাওরী ও কূফাবাসী আলিমগণের অভিমত।

কোন কোন আলিম মনে করেন, সালামের পূর্বে সিজদা সাহু করতে হবে। এ হ’ল যেমন ইয়াহইয়া ইবনু সাঈদ ও রাবীআ (রহঃ) অপরাপর মদীনাবাসী অধিকাংশ ফকীহ-এর অভিমত। ইমাম শাফিঈ (রহঃ)-এর বক্তব্যও এ-ই। কোন কোন আলিম বলেনঃ যদি সালাতে অতিরিক্ত কিছু করা হয় তবে সালামের পর, আর যদি কিছু কম করা হয় তবে সালামের পূর্বে সিজদা সাহু করতে হবে। এ হ’ল ইমাম মালিক ইবনু আনাস (রহঃ)-এর বক্তব্য। ইমাম আহমদ (রহঃ) বলেনঃ নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে সিজদা সাহু-এর ব্যপারে যে সমস্ত রিওয়ায়াত আছে, প্রত্যেকটির উপরই স্ব-স্ব প্রেক্ষেিত অনুসারে আমল করা হবে। দুই রাকআতে যদি কেউ উঠে পড়ে তবে তাকে ইবনু বুহায়না বর্ণিত হাদীসের অনুরূপ সালামের পূর্বে সিজদা সাহু করতে হবে। যোহরের সালাত যদি কেউ পাঁচ রাকআত পড়ে ফেলে, তবে সে সালামের পর সিজদা সাহু করবে। যোহর ও আসরের দুই রাকআতে যদি কেউ সালাম ফিরায়, তবে সে সালামের পর সিজদা সাহু করবে।

মোট কথা এই বিষয়ের প্রতিটি হাদীসকেই তৎপ্রেক্ষেিত অনুসারে আমল করা হবে। আর যে সমস্ত ক্ষেত্রে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে কিছুর উল্লেখ নাই, সে সমস্ত ক্ষেত্রে সালামের পূর্বে সিজদা সাহু করা হবে। ইমাম ইসহাক (রহঃ)-ও এই বিষয়ে ইমাম আহমদ (রহঃ)-এর অনুরূপ মত পোষণ করেন। তবে তিনি বলেনঃ যে সমস্ত ক্ষেত্রে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে কিছুর উল্লেখ নেই, সে সমস্ত ক্ষেত্রে সালাতের অতিরিক্ত কিছু হলে সালামের পর আর কম হলে সালামের পূর্বে সিজদা সাহু করতে হবে।

باب مَا جَاءَ فِي سَجْدَتَىِ السَّهْوِ قَبْلَ التَّسْلِيمِ

حَدَّثَنَا قُتَيْبَةُ، حَدَّثَنَا اللَّيْثُ، عَنِ ابْنِ شِهَابٍ، عَنِ الأَعْرَجِ، عَنْ عَبْدِ اللَّهِ ابْنِ بُحَيْنَةَ الأَسَدِيِّ، حَلِيفِ بَنِي عَبْدِ الْمُطَّلِبِ أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم قَامَ فِي صَلاَةِ الظُّهْرِ وَعَلَيْهِ جُلُوسٌ فَلَمَّا أَتَمَّ صَلاَتَهُ سَجَدَ سَجْدَتَيْنِ يُكَبِّرُ فِي كُلِّ سَجْدَةٍ وَهُوَ جَالِسٌ قَبْلَ أَنْ يُسَلِّمَ وَسَجَدَهُمَا النَّاسُ مَعَهُ مَكَانَ مَا نَسِيَ مِنَ الْجُلُوسِ ‏.‏ قَالَ وَفِي الْبَابِ عَنْ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ عَوْفٍ ‏.‏
حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ بَشَّارٍ، حَدَّثَنَا عَبْدُ الأَعْلَى، وَأَبُو دَاوُدَ قَالاَ حَدَّثَنَا هِشَامٌ، عَنْ يَحْيَى بْنِ أَبِي كَثِيرٍ، عَنْ مُحَمَّدِ بْنِ إِبْرَاهِيمَ، أَنَّ أَبَا هُرَيْرَةَ، وَالسَّائِبَ الْقَارِئَ، كَانَا يَسْجُدَانِ سَجْدَتَىِ السَّهْوِ قَبْلَ التَّسْلِيمِ ‏.‏ قَالَ أَبُو عِيسَى حَدِيثُ ابْنِ بُحَيْنَةَ حَدِيثٌ حَسَنٌ صَحِيحٌ ‏.‏ وَالْعَمَلُ عَلَى هَذَا عِنْدَ بَعْضِ أَهْلِ الْعِلْمِ وَهُوَ قَوْلُ الشَّافِعِيِّ يَرَى سُجُودَ السَّهْوِ كُلِّهِ قَبْلَ السَّلاَمِ وَيَقُولُ هَذَا النَّاسِخُ لِغَيْرِهِ مِنَ الأَحَادِيثِ وَيَذْكُرُ أَنَّ آخِرَ فِعْلِ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم كَانَ عَلَى هَذَا ‏.‏ وَقَالَ أَحْمَدُ وَإِسْحَاقُ إِذَا قَامَ الرَّجُلُ فِي الرَّكْعَتَيْنِ فَإِنَّهُ يَسْجُدُ سَجْدَتَىِ السَّهْوِ قَبْلَ السَّلاَمِ عَلَى حَدِيثِ ابْنِ بُحَيْنَةَ ‏.‏ وَعَبْدُ اللَّهِ ابْنُ بُحَيْنَةَ هُوَ عَبْدُ اللَّهِ بْنُ مَالِكٍ وَهُوَ ابْنُ بُحَيْنَةَ مَالِكٌ أَبُوهُ وَبُحَيْنَةُ أُمُّهُ ‏.‏ هَكَذَا أَخْبَرَنِي إِسْحَاقُ بْنُ مَنْصُورٍ عَنْ عَلِيِّ بْنِ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ الْمَدِينِيِّ ‏.‏ قَالَ أَبُو عِيسَى وَاخْتَلَفَ أَهْلُ الْعِلْمِ فِي سَجْدَتَىِ السَّهْوِ مَتَى يَسْجُدُهُمَا الرَّجُلُ قَبْلَ السَّلاَمِ أَوْ بَعْدَهُ فَرَأَى بَعْضُهُمْ أَنْ يَسْجُدَهُمَا بَعْدَ السَّلاَمِ ‏.‏ وَهُوَ قَوْلُ سُفْيَانَ الثَّوْرِيِّ وَأَهْلِ الْكُوفَةِ ‏.‏ وَقَالَ بَعْضُهُمْ يَسْجُدُهُمَا قَبْلَ السَّلاَمِ ‏.‏ وَهُوَ قَوْلُ أَكْثَرِ الْفُقَهَاءِ مِنْ أَهْلِ الْمَدِينَةِ مِثْلِ يَحْيَى بْنِ سَعِيدٍ وَرَبِيعَةَ وَغَيْرِهِمَا وَبِهِ يَقُولُ الشَّافِعِيُّ ‏.‏ وَقَالَ بَعْضُهُمْ إِذَا كَانَتْ زِيَادَةً فِي الصَّلاَةِ فَبَعْدَ السَّلاَمِ وَإِذَا كَانَ نُقْصَانًا فَقَبْلَ السَّلاَمِ ‏.‏ وَهُوَ قَوْلُ مَالِكِ بْنِ أَنَسٍ ‏.‏ وَقَالَ أَحْمَدُ مَا رُوِيَ عَنِ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم فِي سَجْدَتَىِ السَّهْوِ فَيُسْتَعْمَلُ كُلٌّ عَلَى جِهَتِهِ يَرَى إِذَا قَامَ فِي الرَّكْعَتَيْنِ عَلَى حَدِيثِ ابْنِ بُحَيْنَةَ فَإِنَّهُ يَسْجُدُهُمَا قَبْلَ السَّلاَمِ وَإِذَا صَلَّى الظُّهْرَ خَمْسًا فَإِنَّهُ يَسْجُدُهُمَا بَعْدَ السَّلاَمِ وَإِذَا سَلَّمَ فِي الرَّكْعَتَيْنِ مِنَ الظُّهْرِ وَالْعَصْرِ فَإِنَّهُ يَسْجُدُهُمَا بَعْدَ السَّلاَمِ وَكُلٌّ يُسْتَعْمَلُ عَلَى جِهَتِهِ ‏.‏ وَكُلُّ سَهْوٍ لَيْسَ فِيهِ عَنِ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم ذِكْرٌ فَإِنَّ سَجْدَتَىِ السَّهْوِ قَبْلَ السَّلاَمِ ‏.‏ وَقَالَ إِسْحَاقُ نَحْوَ قَوْلِ أَحْمَدَ فِي هَذَا كُلِّهِ إِلاَّ أَنَّهُ قَالَ كُلُّ سَهْوٍ لَيْسَ فِيهِ عَنِ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم ذِكْرٌ فَإِنْ كَانَتْ زِيَادَةً فِي الصَّلاَةِ يَسْجُدُهُمَا بَعْدَ السَّلاَمِ وَإِنْ كَانَ نُقْصَانًا يَسْجُدُهُمَا قَبْلَ السَّلاَمِ ‏.‏

حدثنا قتيبة، حدثنا الليث، عن ابن شهاب، عن الأعرج، عن عبد الله ابن بحينة الأسدي، حليف بني عبد المطلب أن النبي صلى الله عليه وسلم قام في صلاة الظهر وعليه جلوس فلما أتم صلاته سجد سجدتين يكبر في كل سجدة وهو جالس قبل أن يسلم وسجدهما الناس معه مكان ما نسي من الجلوس ‏.‏ قال وفي الباب عن عبد الرحمن بن عوف ‏.‏ حدثنا محمد بن بشار، حدثنا عبد الأعلى، وأبو داود قالا حدثنا هشام، عن يحيى بن أبي كثير، عن محمد بن إبراهيم، أن أبا هريرة، والسائب القارئ، كانا يسجدان سجدتى السهو قبل التسليم ‏.‏ قال أبو عيسى حديث ابن بحينة حديث حسن صحيح ‏.‏ والعمل على هذا عند بعض أهل العلم وهو قول الشافعي يرى سجود السهو كله قبل السلام ويقول هذا الناسخ لغيره من الأحاديث ويذكر أن آخر فعل النبي صلى الله عليه وسلم كان على هذا ‏.‏ وقال أحمد وإسحاق إذا قام الرجل في الركعتين فإنه يسجد سجدتى السهو قبل السلام على حديث ابن بحينة ‏.‏ وعبد الله ابن بحينة هو عبد الله بن مالك وهو ابن بحينة مالك أبوه وبحينة أمه ‏.‏ هكذا أخبرني إسحاق بن منصور عن علي بن عبد الله بن المديني ‏.‏ قال أبو عيسى واختلف أهل العلم في سجدتى السهو متى يسجدهما الرجل قبل السلام أو بعده فرأى بعضهم أن يسجدهما بعد السلام ‏.‏ وهو قول سفيان الثوري وأهل الكوفة ‏.‏ وقال بعضهم يسجدهما قبل السلام ‏.‏ وهو قول أكثر الفقهاء من أهل المدينة مثل يحيى بن سعيد وربيعة وغيرهما وبه يقول الشافعي ‏.‏ وقال بعضهم إذا كانت زيادة في الصلاة فبعد السلام وإذا كان نقصانا فقبل السلام ‏.‏ وهو قول مالك بن أنس ‏.‏ وقال أحمد ما روي عن النبي صلى الله عليه وسلم في سجدتى السهو فيستعمل كل على جهته يرى إذا قام في الركعتين على حديث ابن بحينة فإنه يسجدهما قبل السلام وإذا صلى الظهر خمسا فإنه يسجدهما بعد السلام وإذا سلم في الركعتين من الظهر والعصر فإنه يسجدهما بعد السلام وكل يستعمل على جهته ‏.‏ وكل سهو ليس فيه عن النبي صلى الله عليه وسلم ذكر فإن سجدتى السهو قبل السلام ‏.‏ وقال إسحاق نحو قول أحمد في هذا كله إلا أنه قال كل سهو ليس فيه عن النبي صلى الله عليه وسلم ذكر فإن كانت زيادة في الصلاة يسجدهما بعد السلام وإن كان نقصانا يسجدهما قبل السلام ‏.‏


Abdullah bin Buhainah Al-Asdi the ally of Banu Abdul-Muttalib narrated:
"The Prophet (S) stood for the Zuhr prayer, and he had a sitting to perform, so when he completed his Salat, he performed two prostrations, saying the Takbir for each prostration. So he was sitting before saying the Salam, and the people prostrated with him in place of the sitting he forgot."

There is a narrated with another chain that Abu Hurairah and ['Abdullah bin] As-Sa'id Al-Qari' would perform the prostrations of As-Sahw before the Taslim.

Abu 'Eisa said:
The Hadith of Ibn Buhainah is a Hasan [Sahih] Hadith, and this is acted upon according to some of the people of knowledge. It is the opinion of Ash-Shafi'i, he held the view that all prostrations for As-Sahw were to be performed before the Salam, saying: "This one abrogates the other Ahadith" and he mentioned that the last action of the Prophet (ﷺ) was according to this.

Ahmad and Ishaq said: "When a man stands up after two Rak'ah, then he performs the prostrations for As-Sahw before the Salam according to the Hadith of Ibn Buhainah."

'Abdullah bin Buhainah is 'Abdullah bin Malik [so he is] Ibn Buhainah (because) Malik is his father and Buhainah is his mother.

I was informed of this by Ishaq bin Mansur from 'Ali [bin 'Abdullah] bin Al-Madini.

Abu 'Eisa said: The people of knowledge differ over when a man is to perform the prostrations of As-Sahw, is it before the Salam or after it. Some of them thought that her performs them after the Salam. This is the view of Sufyan Ath-Thawri and the people of Al-Kufah. Some of them said he performs them before the Salam. This is the view of most of the Fuqaha among the people of Al-Madinah, like Yahya bin Sa'eed, Rabi'ah, and others. This is also the saying of Ash-Shafi'i.

Some of them said when he adds to the Salat, then it is after the Salam, and when he leaves something out, then before the Salam. This is the view of Malik bin Anas.

Ahmad said: "Whatever is reported from the Prophet (ﷺ) about the prostrations from As-Sahw then it is acted upon in either case." He saw that when one stands after Rak'ah then according to the Hadith of Ibn Buhainah, he is to perform the prostrations before the Salam. When he prays five for Zuhr, then performs the prostrations after the Salam, and if he says Salam after two Rak'ahs of Zuhr or 'Asr then he performs the prostrations after the Salam. All of them are to be acted upon depending upon the case, and in the cases where nothing is reported from the Prophet (ﷺ), then two prostrations are performed for As-Sahw before the Salam.

Ishaq said the same as Ahmad about all of this, with the exception that he said that for every case of As-Sahw that is not mentioned from the Prophet (ﷺ), then if it is an addition to the Salat, then prostrations are performed after the Salam, and if it is something that was left out, then the prostrations are performed before the Salam.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
সূনান তিরমিজী (ইসলামিক ফাউন্ডেশন)
২/ সালাত (নামায) (كتاب الصلاة)