রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন) ৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) - The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৪: রোগীকে সাক্ষাৎ করে জিজ্ঞাসাবাদ করার মাহাত্ম্য

১/৮৯৯। বারা’ ইবনে আযেব রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, ‘রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদেরকে রোগীর কুশল জিজ্ঞাসা করতে যাওয়া, জানাযার সঙ্গে যাওয়া, কেউ হাঁচলে তার জবাব দেওয়া, কসমকারীর কসম পুরা করা, অত্যাচারিতের সাহায্য করা, নিমন্ত্রণ গ্রহণ করা ও সালাম প্রচার করার আদেশ দিয়েছেন।’ (বুখারী ও মুসলিম) [1]

(144) بَابُ عِيَادَةِ الْمَرِيْضِ

عَنِ البَرَاءِ بنِ عَازِبٍ رَضِيَ اللهُ عَنهُمَا، قَالَ: أَمَرَنَا رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم بعِيَادَةِ الْمَريضِ، وَاتِّبَاعِ الجَنَازَةِ، وَتَشْمِيتِ العَاطِسِ، وَإبْرَارِ الْمُقْسِمِ، وَنَصْرِ المَظْلُومِ، وَإجَابَةِ الدَّاعِي، وَإفْشَاءِ السَّلاَمِ . متفقٌ عَلَيْهِ

عن البراء بن عازب رضي الله عنهما، قال: أمرنا رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم بعيادة المريض، واتباع الجنازة، وتشميت العاطس، وإبرار المقسم، ونصر المظلوم، وإجابة الداعي، وإفشاء السلام . متفق عليه

(144) Chapter: Visiting the Sick


Al-Bara' bin `Azib (May Allah be pleased with them) reported:
Messenger of Allah (ﷺ) has ordered us to visit the sick, to follow the funeral (of a dead believer), respond to the sneezer (i.e., by saying to him: Yarhamuk-Allah after he says: Al-hamdu lillah), to help those who vow to fulfill it, to help the oppressed, to accept the invitation extended by the inviter; and to promote greetings (i.e., saying As-Salamu `Alaikum).


[Al-Bukhari and Muslim].

Commentary: This Hadith has already been mentioned with slightly different wording. Here it has been repeated owing to its relevance to this chapter. See Hadith No. 847.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৪: রোগীকে সাক্ষাৎ করে জিজ্ঞাসাবাদ করার মাহাত্ম্য

২/৯০০। আবূ হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘‘এক মুসলিমের অধিকার অপর মুসলিমের উপর পাঁচটিঃ সালামের জবাব দেওয়া, রুগীকে দেখতে যাওয়া, জানাযার সঙ্গে যাওয়া, দাওয়াত কবুল করা এবং হাঁচলে তার জবাব দেওয়া।’’ (বুখারী ও মুসলিম) [1]

(144) بَابُ عِيَادَةِ الْمَرِيْضِ

وَعَنْ أَبِي هُرَيرَةَ رضي الله عنه: أَنَّ رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، قَالَ: « حَقُّ المُسْلِمِ عَلَى المُسْلِمِ خَمْسٌ: رَدُّ السَّلاَمِ، وَعِيَادَةُ المَرِيضِ، وَاتِّبَاعُ الجَنَائِزِ، وَإِجَابَةُ الدَّعْوَةِ، وَتَشْمِيتُ العَاطِسِ ». متفقٌ عَلَيْه

وعن أبي هريرة رضي الله عنه: أن رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، قال: « حق المسلم على المسلم خمس: رد السلام، وعيادة المريض، واتباع الجنائز، وإجابة الدعوة، وتشميت العاطس ». متفق عليه

(144) Chapter: Visiting the Sick


Abu Hurairah (May Allah be pleased with him) reported:
The Messenger of Allah (ﷺ) said, "Every Muslim has five rights over another Muslim (i.e., he has to perform five duties for another Muslim): to return the greetings, to visit the sick, to accompany funeral processions, to accept an invitation, to respond to the sneezer [i.e., to say: 'Yarhamuk-Allah (may Allah bestow His Mercy on you),' when the sneezer praises Allah]."

[Al-Bukhari and Muslim].

Commentary: This Hadith has already been mentioned. See the commentary on Hadith No. 240.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৪: রোগীকে সাক্ষাৎ করে জিজ্ঞাসাবাদ করার মাহাত্ম্য

৩/৯০১। উক্ত রাবী (আবূ হুরায়রাহ) রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু থেকেই বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘‘আল্লাহ আয্যা অজাল্ল কিয়ামতের দিন বলবেন, ‘হে আদম সন্তান! আমি অসুস্থ ছিলাম, তুমি আমাকে দেখতে আসনি।’ সে বলবে, ‘হে প্রভু! কিভাবে আমি আপনাকে দেখতে যাব, আপনি তো সারা জাহানের পালনকর্তা?’ তিনি বলবেন, ‘তুমি কি জানতে না যে, আমার অমুক বান্দা অসুস্থ ছিল? তুমি তাকে দেখতে যাওনি। তুমি কি জানতে না যে, তুমি যদি তাকে দেখতে যেতে, তাহলে অবশ্যই তুমি আমাকে তার কাছে পেতে?

হে আদম সন্তান! আমি তোমার কাছে খাবার চেয়েছিলাম, তুমি আমাকে খাবার দাওনি।’ সে বলবে, ‘হে প্রভু! আমি আপনাকে কিভাবে খাবার দেব, আপনি তো সারা জাহানের প্রভু?’ আল্লাহ বলবেন, ‘তোমার কি জানা ছিল না যে, আমার অমুক বান্দা তোমার কাছে খাবার চেয়েছিল, কিন্তু তাকে তুমি খাবার দাওনি? তোমার কি জানা ছিল না যে, যদি তাকে খাবার দিতে, তাহলে অবশ্যই তা আমার কাছে পেতে?

হে আদম সন্তান! তোমার কাছে আমি পানি পান করতে চেয়েছিলাম, কিন্তু তুমি আমাকে পান করাওনি।’ বান্দা বলবে, ‘হে প্রভু! আপনাকে কিরূপে পানি পান করাবো, আপনি তো সমগ্র জগতের প্রভু?’ তিনি বলবেন, ‘আমার অমুক বান্দা তোমার কাছে পানি চেয়েছিল, তুমি তাকে পান করাওনি। তুমি কি জানতে না যে, যদি তাকে পান করাতে, তাহলে তা অবশ্যই আমার কাছে পেতে? ’’ (মুসলিম) [1]

(144) بَابُ عِيَادَةِ الْمَرِيْضِ

وَعَنْهُ، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « إِنَّ اللهَ - عَزَّ وَجَلَّ - يَقُولُ يَومَ القِيَامَةِ: يَا ابْنَ آدَمَ، مَرِضْتُ فَلَمْ تَعُدنِي ! قَالَ: يَا رَبِّ، كَيْفَ أعُودُكَ وَأنْتَ رَبُّ العَالَمِينَ ؟! قَالَ: أمَا عَلِمْتَ أَنَّ عَبْدِي فُلاَناً مَرِضَ فَلَمْ تَعُدْهُ ! أمَا عَلِمْتَ أنَّكَ لَوْ عُدْتَهُ لَوَجَدْتَني عِنْدَهُ ! يَا ابْنَ آدَمَ، اسْتَطْعَمْتُكَ فَلَمْ تُطْعِمنِي ! قَالَ: يَا رَبِّ، كَيْفَ أُطْعِمُكَ وَأنْتَ رَبُّ العَالَمِينَ ؟! قَالَ: أمَا عَلِمْتَ أنَّهُ اسْتَطْعَمَكَ عَبْدِي فُلانٌ فَلَمْ تُطْعِمْهُ ! أمَا عَلِمْتَ أنَّكَ لَوْ أَطْعَمْتَهُ لَوَجَدْتَ ذَلِكَ عِنْدِي ! يَا ابْنَ آدَمَ، اسْتَسْقَيْتُكَ فَلَمْ تَسْقِنِي ! قَالَ: يَا رَبِّ، كَيْفَ أَسْقِيكَ وَأنْتَ رَبُّ العَالَمينَ ؟! قَالَ: اسْتَسْقَاكَ عَبْدِي فُلاَنٌ فَلَمْ تَسْقِهِ ! أمَا عَلِمْتَ أَنَّكَ لَوْ سَقَيْتَهُ لَوَجَدْتَ ذَلِكَ عِنْدِي ! » رواه مسلم

وعنه، قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « إن الله - عز وجل - يقول يوم القيامة: يا ابن آدم، مرضت فلم تعدني ! قال: يا رب، كيف أعودك وأنت رب العالمين ؟! قال: أما علمت أن عبدي فلانا مرض فلم تعده ! أما علمت أنك لو عدته لوجدتني عنده ! يا ابن آدم، استطعمتك فلم تطعمني ! قال: يا رب، كيف أطعمك وأنت رب العالمين ؟! قال: أما علمت أنه استطعمك عبدي فلان فلم تطعمه ! أما علمت أنك لو أطعمته لوجدت ذلك عندي ! يا ابن آدم، استسقيتك فلم تسقني ! قال: يا رب، كيف أسقيك وأنت رب العالمين ؟! قال: استسقاك عبدي فلان فلم تسقه ! أما علمت أنك لو سقيته لوجدت ذلك عندي ! » رواه مسلم

(144) Chapter: Visiting the Sick


Abu Hurairah (May Allah be pleased with him) reported:
The Messenger of Allah (ﷺ) said, "Verily, Allah, the Exalted, and Glorious will say on the Day of Resurrection: 'O son of Adam, I was ill but you did not visit Me.' He would say: 'O my Rubb, how could I visit you and You are the Rubb of the worlds?' Thereupon He would say: 'Did you not know that such and such a slave of Mine was ill but you did not visit him? Did you not realize that if you had visited him (you would have known that I was aware of your visit to him, for which I would reward you) you would have found Me with him? O son of Adam, I asked food from you but you did not feed Me.' He would submit: 'My Rubb, how could I feed You and You are the Rubb of the worlds?' He would say: 'Did you not know that such and such a slave of Mine asked you for food but you did not feed him? Did you not realize that if you had fed him, you would certainly have found (its reward) with Me? O son of Adam, I asked water from you but you did not give it to Me.' He would say: 'My Rubb, how could I give You (water) and You are the Rubb of the worlds?' Thereupon He would say: 'Such and such a slave of Mine asked you for water to drink but you did not give it to him. Did you not realize that if you had given him to drink you would have found (its reward) with Me?"'

[Muslim].

Commentary: The person who is more beneficial to the slaves of Allah is loved most by Him. Allah likes it very much if somebody serves His creatures and treats them well. He will give him the best reward for it. Here, one has been urged in an effective and eloquent way to visit the sick and to treat the needy nicely.* This Hadith is a clear-cut proof refuting pantheism for it is clear that this Hadith differentiates between the Creator and the creature in terms of feeding, giving water to drink, visiting, etc.

* This Hadith confirms the speech as Divine attribute.
* That Allah rewards His slaves for their good deeds, and never wrongs a thing.
* The duty of looking after the Muslims and their interests seeking the pleasure of Allah.
* The duty of visiting the sick.
* The duty of offering food for the hungry needy Muslims.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৪: রোগীকে সাক্ষাৎ করে জিজ্ঞাসাবাদ করার মাহাত্ম্য

৪/৯০২। আবূ মূসা ‘আশআরী রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু কর্তৃক বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘‘তোমরা রুগী দেখতে যাও, ক্ষুধার্তকে অন্ন দাও এবং বন্দীকে মুক্ত কর।’’ (বুখারী) [1]

(144) بَابُ عِيَادَةِ الْمَرِيْضِ

وَعَنْ أَبي مُوسَى رضي الله عنه، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « عُودُوا المَريضَ، وَأطْعِمُوا الجَائِعَ، وَفُكُّوا العَانِي ». رواه البخاري

وعن أبي موسى رضي الله عنه، قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « عودوا المريض، وأطعموا الجائع، وفكوا العاني ». رواه البخاري

(144) Chapter: Visiting the Sick


Abu Musa (May Allah be pleased with him) reported:
The Messenger of Allah (ﷺ) said, "Visit the sick, feed the hungry, and (arrange for the) release of the captive.''


[Al-Bukhari].

Commentary: Islam calls upon its followers to co-operate with one another in good things. Like the previous Ahadith, this Hadith too, should be viewed in the same context. Herein, believers are enjoined to endeavour for the liberation of a fellow-Muslim who becomes a prisoner of war or is taken captive by disbelievers in any way. This instruction of the Messenger of Allah (PBUH) is also meant for the help of that person who is involved in a false case or is undergoing jail term on this count. Similarly, it is the duty of the community to extend help and cooperation to a Muslim suffering a financial difficulty so that he becomes self-sufficient.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৪: রোগীকে সাক্ষাৎ করে জিজ্ঞাসাবাদ করার মাহাত্ম্য

৫/৯০৩। সওবান রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘‘কোন মুসলিম যখন তার অন্য কোন মুসলিম ভাইয়ের রোগ জিজ্ঞাসা করতে যায়, সে না ফিরা পর্যন্ত জান্নাতের ‘খুরফার’ মধ্যে সর্বদা অবস্থান করে।’’ জিজ্ঞাসা করা হল, ‘হে আল্লাহর রাসূল! খুরফাহ কী?’ তিনি বললেন, ‘‘জান্নাতের ফল-পাড়া।’’ (মুসলিম) [1]

(144) بَابُ عِيَادَةِ الْمَرِيْضِ

وَعَنْ ثَوبَانَ رضي الله عنه، عَنِ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم، قَالَ: « إنَّ المُسْلِمَ إِذَا عَادَ أخَاهُ المُسْلِمَ، لَمْ يَزَلْ في خُرْفَةِ الْجَنَّةِ حَتَّى يَرْجِعَ ». قِيلَ: يَا رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم، وَمَا خُرْفَةُ الجَنَّةِ ؟ قَالَ: « جَنَاهَا ». رواه مسلم

وعن ثوبان رضي الله عنه، عن النبي صلى الله عليه وسلم، قال: « إن المسلم إذا عاد أخاه المسلم، لم يزل في خرفة الجنة حتى يرجع ». قيل: يا رسول الله صلى الله عليه وسلم، وما خرفة الجنة ؟ قال: « جناها ». رواه مسلم

(144) Chapter: Visiting the Sick


Thauban (May Allah be pleased with him) reported:
The Prophet (ﷺ) said, "He who visits his brother in Faith, will remain engaged in picking the fresh fruits from the garden of Jannah till he returns."

[Muslim].


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ সাওবান (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৪: রোগীকে সাক্ষাৎ করে জিজ্ঞাসাবাদ করার মাহাত্ম্য

৬/৯০৪। আলী রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি, ‘‘যে কোন মুসলিম অন্য কোন (অসুস্থ) মুসলিমকে সকাল বেলায় কুশল জিজ্ঞাসা করতে যাবে, তার জন্য সন্ধ্যা পর্যন্ত সত্তর হাজার ফিরিশ্তা কল্যাণ কামনা করবেন। আর যদি সে সন্ধ্যা বেলায় তাকে কুশল জিজ্ঞাসা করতে যায়, তাহলে সকাল পর্যন্ত সত্তর হাজার ফিরিশ্তা তার মঙ্গল কামনা করে। আর তার জন্য জান্নাতের মধ্যে পাড়া ফল নির্ধারিত হবে। (তিরমিযী হাসান) [1]

(144) بَابُ عِيَادَةِ الْمَرِيْضِ

وَعَنْ عَلِيٍّ رضي الله عنه، قَالَ: سَمِعْتُ رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، يَقُولُ: « مَا مِنْ مُسْلِم يَعُودُ مُسْلِماً غُدْوةً إِلاَّ صَلَّى عَلَيْهِ سَبْعُونَ أَلْفَ مَلَكٍ حَتَّى يُمْسِي، وَإِنْ عَادَهُ عَشِيَّةً إِلاَّ صَلَّى عَلَيْهِ سَبْعُونَ أَلْفَ مَلَكٍ حَتَّى يُصْبحَ، وَكَانَ لَهُ خَرِيفٌ في الْجَنَّةِ ». رواه الترمذي، وَقَالَ: حديث حسن

وعن علي رضي الله عنه، قال: سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، يقول: « ما من مسلم يعود مسلما غدوة إلا صلى عليه سبعون ألف ملك حتى يمسي، وإن عاده عشية إلا صلى عليه سبعون ألف ملك حتى يصبح، وكان له خريف في الجنة ». رواه الترمذي، وقال: حديث حسن

(144) Chapter: Visiting the Sick


'Ali bin Abu Talib (May Allah be pleased with him) reported:
I heard the Messenger of Allah (ﷺ) saying, "When a Muslim visits a sick Muslim at dawn, seventy thousand angels keep on praying for him till dusk. If he visits him in the evening, seventy thousand angels keep on praying for him till the morning; and he will have (his share of) reaped fruits in Jannah."

[At- Tirmidhi].


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৪: রোগীকে সাক্ষাৎ করে জিজ্ঞাসাবাদ করার মাহাত্ম্য

৭/৯০৫। আনাস রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, একজন ইয়াহুদী বালক নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সেবা করত। হঠাৎ সে অসুস্থ হয়ে পড়ল। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার রোগ জিজ্ঞাসার উদ্দেশ্যে তার নিকট গেলেন এবং তার শিয়রে বসে তাকে বললেন, ‘‘তুমি ইসলাম গ্রহণ কর।’’ সে তার পিতার দিকে তাকালে--তার পিতা সেখানেই উপস্থিত ছিল--সে বলল, ‘আবুল কাসেমের কথা মেনে নাও।’ সুতরাং সে বালকটি ইসলাম গ্রহণ করল। (তারপর সে মারা গেল।) অতঃপর নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এ কথা বলতে বলতে বের হয়ে চলে গেলেন যে, ‘‘সেই আল্লাহর সমস্ত প্রশংসা, যিনি ওকে জাহান্নামের আগুন থেকে বাঁচিয়ে নিলেন।’’ (বুখারী) [1]

(144) بَابُ عِيَادَةِ الْمَرِيْضِ

وَعَنْ أَنَسٍ رضي الله عنه، قَالَ: كَانَ غُلاَمٌ يَهُودِيٌّ يَخْدُمُ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم، فَمَرِضَ، فَأتَاهُ النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم يَعُودُهُ، فَقَعَدَ عِنْدَ رَأسِهِ، فَقَالَ لَهُ: « أسْلِمْ » فَنَظَرَ إِلَى أبِيهِ وَهُوَ عِنْدَهُ ؟ فَقَالَ: أَطِعْ أَبَا القَاسِمِ، فَأَسْلَمَ، فَخَرَجَ النَّبيُّ صلى الله عليه وسلم، وَهُوَ يَقُولُ: « اَلحَمْدُ للهِ الَّذِي أنْقَذَهُ منَ النَّارِ ». رواه البخاري

وعن أنس رضي الله عنه، قال: كان غلام يهودي يخدم النبي صلى الله عليه وسلم، فمرض، فأتاه النبي صلى الله عليه وسلم يعوده، فقعد عند رأسه، فقال له: « أسلم » فنظر إلى أبيه وهو عنده ؟ فقال: أطع أبا القاسم، فأسلم، فخرج النبي صلى الله عليه وسلم، وهو يقول: « الحمد لله الذي أنقذه من النار ». رواه البخاري

(144) Chapter: Visiting the Sick


Anas (May Allah be pleased with him) reported:
A young Jewish boy who was in the service of the Prophet (ﷺ) fell ill. The Prophet (ﷺ) went to visit him. He sat down by his head and said to him, "Embrace Islam." The little boy looked at his father who was sitting beside him. He said: "Obey Abul-Qasim (i.e., the Messenger of Allah (ﷺ))." So he embraced Islam and the Prophet (ﷺ) stepped out saying, "Praise be to Allah Who has saved him from Hell-fire."

[Al-Bukhari].

Commentary: Herein, the example of the Messenger of Allah (PBUH) inspires us to visit even a sick disbeliever and invite him to accept Islam. Besides, the Hadith tells that the company of the virtuous does bear fruit and that we should continue to hope that the heart of a disbeliever will turn to Allah at any moment. Furthermore, we come to believe that parents, though not clinging to the right way, may tell their offspring to pursue the truth.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

১/৯০৬। আয়েশা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহা হতে বর্ণিত, যখন কোন ব্যক্তি নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট নিজের কোন অসুস্থতার অভিযোগ করত অথবা (তার দেহে) কোন ফোঁড়া কিংবা ক্ষত হত, তখন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নিজ আঙ্গুল নিয়ে এ রকম করতেন। (হাদীসের রাবী) সুফ্য়ান তাঁর শাহাদত আঙ্গুলটিকে যমীনের উপর রাখার পর উঠালেন। (অর্থাৎ তিনি এভাবে মাটি লাগাতেন।)

অতঃপর দো‘আটি পড়তেনঃ ‘বিসমিল্লাহি তুরবাতু আরদ্বিনা, বিরীক্বাতি বা’যিবনা, য়্যুশফা বিহী সাক্বীমুনা, বিইযনি রাব্বিনা।’ অর্থাৎ আল্লাহর নামের সঙ্গে আমাদের যমীনের মাটি এবং আমাদের কিছু লোকের থুতু মিশ্রিত করে (ফোঁড়াতে) লাগালাম। আমাদের প্রতিপালকের আদেশে এর দ্বারা আমাদের রুগী সুস্থতা লাভ করবে। (বুখারী ও মুসলিম) [1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

عَنْ عَائِشَةَ رَضِيَ اللهُ عَنهَا: أنَّ النَّبيَّ صلى الله عليه وسلم، كَانَ إِذَا اشْتَكَى الإنْسَانُ الشَّيْءَ مِنْهُ، أَوْ كَانَتْ بِهِ قَرْحَةٌ أَوْ جُرْحٌ، قَالَ النَّبيُّ صلى الله عليه وسلم بِأُصْبُعِهِ هكَذا- وَوَضَعَ سُفْيَانُ بْنُ عُيَيْنَة الرَّاوي سَبَّابَتَهُ بِالأَرْضِ ثُمَّ رَفَعَها- وَقَالَ: «بِسمِ اللهِ، تُرْبَةُ أرْضِنَا، بِرِيقَةِ بَعْضِنَا، يُشْفَى بِهِ سَقِيمُنَا، بِإِذْنِ رَبِّنَا». متفقٌ عَلَيْهِ

عن عائشة رضي الله عنها: أن النبي صلى الله عليه وسلم، كان إذا اشتكى الإنسان الشيء منه، أو كانت به قرحة أو جرح، قال النبي صلى الله عليه وسلم بأصبعه هكذا- ووضع سفيان بن عيينة الراوي سبابته بالأرض ثم رفعها- وقال: «بسم الله، تربة أرضنا، بريقة بعضنا، يشفى به سقيمنا، بإذن ربنا». متفق عليه

(145) Chapter: Supplication for the Sick


`Aishah (May Allah be pleased with him) reported:
When a person complained to the Prophet (ﷺ) about an ailment or suffered from a sore or a wound, the Prophet (ﷺ) would touch the ground with his forefinger and then raise it (Sufyan bin `Uyainah, the narrator, demonstrated this with his forefinger) and would recite: `Bismil-lahi, turbatu ardina, biriqati ba`dina, yushfa bihi saqimuni, bi 'idhni Rabbina' (With the Name of Allah, the dust of our ground mixed with the saliva of some of us would cure our patient with the permission of our Rubb.''


[Al-Bukhari and Muslim].

Commentary: The Prophet (PBUH) would put his forefinger on earth and then mix his spittle with the dust sticking to it. Afterwards, he would put it on the patient's pain-spot or wound and utter the said supplication. This simple act would cure the patient. Some believe that it was peculiar only to the Prophet (PBUH) and was indeed his miracle because the particular dust was of Al-Madinah's soil with the Prophet's spittle being of a unique quality. But Ibn Hajar differs from this view. Spittle and dust, according to him, are simply external means and the curative effect in them comes from Allah Alone. Secondly, we may turn to the pious people to seek their blessings and prayers for the removal of our ailments and troubles, provided the spiritual treatment is bereft of amulets and other polytheistic ways.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

২/৯০৭। আয়েশা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহা হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আপন পরিবারের কোন রোগী-দর্শন করার সময় নিজের ডান হাত তার ব্যথার স্থানে ফিরাতেন এবং এ দো‘আটি পড়তেন, ‘‘আযহিবিল বা’স, রাব্বান্না-স, ইশফি আন্তাশ শা-ফী, লা শিফা-আ ইল্লা শিফা-উক, শিফা-আল লা য়্যুগা-দিরু সাক্বামা।’’ অর্থাৎ হে আল্লাহ! মানুষের প্রতিপালক! তুমি কষ্ট দূর কর এবং আরোগ্য দান কর। (যেহেতু) তুমি রোগ আরোগ্যকারী। তোমারই আরোগ্য দান হচ্ছে প্রকৃত আরোগ্য দান। তুমি এমনভাবে রোগ নিরাময় কর, যেন তা রোগকে নির্মূল করে দেয়। (বুখারী ও মুসলিম) [1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

وَعَنْها: أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم كَانَ يَعُودُ بَعْضَ أَهْلِهِ يَمْسَحُ بِيدِهِ اليُمْنَى، وَيَقُولُ: « اَللهم رَبَّ النَّاسِ، أَذْهِبِ البَأسَ، اِشْفِ أَنْتَ الشَّافِي لاَ شِفَاءَ إِلاَّ شِفَاؤُكَ، شِفَاءً لاَ يُغَادِرُ سَقَماً ». متفقٌ عَلَيْهِ

وعنها: أن النبي صلى الله عليه وسلم كان يعود بعض أهله يمسح بيده اليمنى، ويقول: « اللهم رب الناس، أذهب البأس، اشف أنت الشافي لا شفاء إلا شفاؤك، شفاء لا يغادر سقما ». متفق عليه

(145) Chapter: Supplication for the Sick


'Aishah (May Allah be pleased with her) reported:
When the Prophet (ﷺ) visited any ailing member of his family, he would touch the sick person with his right hand and would supplicate: "Allahumma Rabban-nasi, adhhibil-ba'sa, washfi, Antash-Shafi, la shifa'a illa shifa'uka, shifaan la yughadiru saqaman [O Allah! the Rubb of mankind! Remove this disease and cure (him or her)! You are the Great Curer. There is no cure but through You, which leaves behind no disease]."

[Al-Bukhari and Muslim].

Commentary: The word "Ya`udu'' (enquired about the patient's health or visited) occurs in the Hadith text quoted by Imam An-Nawawi. But according to Al-Bukhari, this word is "Yuawwidu'' which, says Ibn Hajar, is synonymous to the word "Yarqee'' (blew over the patient).


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

৩/৯০৮। আনাস রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি সাবেত (রাহিমাহুল্লাহ)কে বললেন, ‘আমি কি তোমাকে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর মন্ত্র দ্বারা ঝাড়ফুঁক করব না?’ সাবেত বললেন, ‘অবশ্যই।’ আনাস রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু এই দো‘আ পড়লেন, ‘‘আল্লাহুম্মা রাব্বান্না-স, মুযহিবাল বা’স, ইশফি আন্তাশ শা-ফী, লা শা-ফিয়া ইল্লা আন্ত্, শিফা-আল লা য়্যুগা-দিরু সাক্বামা।’’

অর্থাৎ হে আল্লাহ! মানুষের প্রতিপালক! তুমি কষ্ট দূর কর এবং আরোগ্য দান কর। (যেহেতু) তুমি রোগ আরোগ্যকারী। তুমি ছাড়া আরোগ্যকারী আর কেউ নেই। তুমি এমনভাবে রোগ নিরাময় কর, যেন তা রোগকে নির্মূল করে দেয়। (বুখারী)[1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

وَعَنْ أَنَسٍ رضي الله عنه أَنَّهُ قَالَ لِثَابِتٍ رَحِمَهُ اللهُ: أَلاَ أَرْقِيكَ بِرُقْيَةِ رَسُولِ اللهِ صلى الله عليه وسلم ؟ قَالَ: بَلَى، قَالَ: اَللهم رَبَّ النَّاسِ، مُذْهِبَ البَأسِ، اِشْفِ أَنْتَ الشَّافِي، لاَ شَافِيَ إِلاَّ أنْتَ، شِفَاءً لاَ يُغَادِرُ سَقَماً . رواه البخاري

وعن أنس رضي الله عنه أنه قال لثابت رحمه الله: ألا أرقيك برقية رسول الله صلى الله عليه وسلم ؟ قال: بلى، قال: اللهم رب الناس، مذهب البأس، اشف أنت الشافي، لا شافي إلا أنت، شفاء لا يغادر سقما . رواه البخاري

(145) Chapter: Supplication for the Sick


Anas (May Allah be pleased with him) reported:
I said to Thabit (May Allah had Mercy upon him) Should I not perform Ruqyah (i.e., recite supplication or Quranic Ayat and blow) over you, such supplication as was practised by the Messenger of Allah (ﷺ)?" He said: "Please do so." Anas (May Allah be pleased with him) supplicated: "Allahumma Rabban-nasi, mudh-hibal-ba'si, ishfi Antash-Shafi, la shafiya illa Anta, shifa'an la yughadiru saqaman [O Allah! the Rubb of mankind! Take away this disease and cure (him or her). You are the Curer. There is no cure except through You. Cure (him or her), a cure that leaves no disease]."

[Al-Bukhari].

Commentary: The said Hadith testifies that the Prophet (PBUH) and the Companions had certainly `blown over' the patients. There is no doubt about that. Yet, the act of blowing over must be based on the Names and Attributes of Allah and the Prophetic prayers or on Qur'anic Surat and Ayat. Besides, one should have the firm belief that the secondary causes cannot yield the desired effect unless Allah wills so.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

৪/৯০৯। সা‘দ ইবনে আবী অক্কাস রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম (আমার অসুস্থ অবস্থায়) আমাকে দেখা করতে এসে বললেন, ‘‘হে আল্লাহ! সা‘দকে রোগমুক্ত কর, হে আল্লাহ! সা‘দকে রোগমুক্ত কর। হে আল্লাহ! সা‘দকে রোগমুক্ত কর।’’ (মুসলিম) [1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

وَعَنْ سَعدِ بنِ أَبِي وَقَّاصٍ رضي الله عنه، قَالَ: عَادَنِي رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، فَقَالَ: « اَللهم اشْفِ سَعْداً، اَللهم اشْفِ سَعْداً، اَللهم اشْفِ سَعْداً ». رواه مسلم

وعن سعد بن أبي وقاص رضي الله عنه، قال: عادني رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم، فقال: « اللهم اشف سعدا، اللهم اشف سعدا، اللهم اشف سعدا ». رواه مسلم

(145) Chapter: Supplication for the Sick


Sa'd bin Abu Waqqas (May Allah be pleased with him) reported:
The Messenger of Allah (ﷺ) visited me during my illness and supplicated, "O Allah! Cure Sa'd. O Allah! Cure Sa'd. O' Allah! Cure Sa'd."

[Muslim].

Commentary: To pray for the health and recovery of the patient, particularly uttering his name, is commendable. Furthermore, one should repeatedly pray to Allah and beseech Him with supplication till He responds.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

৫/৯১০। আবূ আব্দুল্লাহ ‘উসমান ইবনে আবুল ‘আস রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট ঐ ব্যথার অভিযোগ করলেন, যা তিনি তার দেহে অনুভব করছিলেন। অতঃপর রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাঁকে বললেন, ‘‘তুমি তোমার দেহের ব্যথিত স্থানে হাত রেখে তিনবার ‘বিসমিল্লাহ’ এবং সাতবার ‘আ‘উযু বি‘ইয্যাতিল্লাহি অক্বুদরাতিহী মিন শার্রি মা আজিদু অউহাযিরু’ বল।’’ অর্থাৎ আল্লাহর ইজ্জত এবং কুদরতের আশ্রয় গ্রহণ করছি, সেই মন্দ থেকে যা আমি পাচ্ছি এবং যা থেকে আমি ভয় করছি। (মুসলিম) [1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

وَعَنْ أَبي عَبدِ اللهِ عُثمَانَ بنِ أَبي العَاصِ رضي الله عنه: أَنَّهُ شَكَا إِلَى رَسُولِ اللهِ صلى الله عليه وسلم وَجَعاً يَجِدُهُ في جَسَدِهِ، فَقَالَ لَهُ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « ضَعْ يَدَكَ عَلَى الَّذِي يَألَمُ مِنْ جَسَدِكَ وَقُلْ: بِسمِ اللهِ ثَلاثاً، وَقُلْ سَبْعَ مَرَّاتٍ: أَعُوذُ بِعِزَّةِ اللهِ وَقُدْرَتِهِ مِنْ شَرِّ مَا أجِدُ وَأُحَاذِرُ ». رواه مسلم

وعن أبي عبد الله عثمان بن أبي العاص رضي الله عنه: أنه شكا إلى رسول الله صلى الله عليه وسلم وجعا يجده في جسده، فقال له رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم: « ضع يدك على الذي يألم من جسدك وقل: بسم الله ثلاثا، وقل سبع مرات: أعوذ بعزة الله وقدرته من شر ما أجد وأحاذر ». رواه مسلم

(145) Chapter: Supplication for the Sick


Abu 'Abdullah bin Abul-'as (May Allah be pleased with him) reported:
I complained to the Messenger of Allah (ﷺ) about a pain I had in my body. The Messenger of Allah (ﷺ) said, "Place your hand where you feel pain and say: 'Bismillah (With the Name of Allah)' three times; and then repeat seven times: 'A'udhu bi'izzatillahi wa qudratihi min sharri ma ajidu wa 'uhadhiru (I seek refuge with Allah and with His Power from the evil that afflicts me and that which I apprehend)."'

[Muslim].

Commentary: This Hadith tells us it is not necessary that a patient should exclusively get Ruqyah from others; rather he can also do Ruqyah himself by reciting the Prophet's supplications.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

৬/৯১১। ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘‘যে ব্যক্তি এমন কোন রুগ্ন মানুষকে সাক্ষাৎ করবে, যার এখন মরার সময় উপস্থিত হয়নি এবং তার নিকট সাতবার এই দো‘আটি বলবে, ‘আসআলুল্লাহাল আযীম, রাব্বাল আরশিল আযীম, আঁই য়্যাশ্ফিয়াক’ (অর্থাৎ আমি সুমহান আল্লাহ, মহা আরশের প্রভুর নিকট তোমার আরোগ্য প্রার্থনা করছি), আল্লাহ তাকে সে রোগ থেকে মুক্তি দান করবেন।’’ (আবূ দাউদ, তিরমিযী, হাসান সূত্রে, হাকেম, বুখারীর শর্তে সহীহ সূত্রে) [1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

وَعَنِ ابنِ عَبَّاسٍ رَضِيَ اللهُ عَنهُمَا، عَنِ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم، قَالَ: مَنْ عَادَ مَرِيضاً لَمْ يَحْضُرْهُ أَجَلُهُ، فَقَالَ عِنْدَهُ سَبْعَ مَرَّاتٍ: أَسْأَلُ اللهَ العَظيمَ، رَبَّ العَرْشِ العَظِيمِ، أَنْ يَشْفِيَكَ، إِلاَّ عَافَاهُ اللهُ مِنْ ذَلِكَ المَرَضِ. رواه أَبُو داود والترمذي، وَقَالَ: حديث حسن ، وَقَالَ الحاكم: حديث صحيح عَلَى شرط البخاري

وعن ابن عباس رضي الله عنهما، عن النبي صلى الله عليه وسلم، قال: من عاد مريضا لم يحضره أجله، فقال عنده سبع مرات: أسأل الله العظيم، رب العرش العظيم، أن يشفيك، إلا عافاه الله من ذلك المرض. رواه أبو داود والترمذي، وقال: حديث حسن ، وقال الحاكم: حديث صحيح على شرط البخاري

(145) Chapter: Supplication for the Sick


Ibn 'Abbas (May Allah be pleased with them) reported:
The Prophet (ﷺ) said, "He who visits a sick person who is not on the point of death and supplicates seven times: As'alullahal-'Azima Rabbal-'Arshil-'Azimi, an yashfiyaka (I beseech Allah the Great, the Rubb of the Great Throne, to heal you), Allah will certainly heal him from that sickness."

[Abu Dawud and At- Tirmidhi].

Commentary: There is always a great certainty that Allah will respond to a supplication which springs from a sincere, veracious heart. One should, therefore, pray for a patient with full conviction and reassurance of heart. Moreover, the Prophet's prayers have special effect and grace and therefore their original wordings should be uttered.


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

৭/৯১২। উক্ত রাবী (ইবনু আব্বাস) রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এক পীড়িত বেদুঈনের সাক্ষাতে গেলেন। আর নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যে রোগীকেই সাক্ষাৎ করতে যেতেন, তাকে বলতেন, ‘‘লা-বা’স, ত্বাহুরুন ইনশাআল্লাহ।’’ অর্থাৎ কোন ক্ষতি নেই, (গোনাহ থেকে) পবিত্র হবে ইন শাআল্লাহ। (বুখারী)[1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

وَعَنْه: أنَّ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم دَخَلَ عَلَى أَعْرَابِيٍّ يَعُوْدُهُ، وَكَانَ إِذَا دَخَلَ عَلَى مَنْ يَعُوْدُهُ، قَالَ: «لاَ بَأسَ ؛ طَهُورٌ إنْ شَاءَ اللهُ ». رواه البخاري

وعنه: أن النبي صلى الله عليه وسلم دخل على أعرابي يعوده، وكان إذا دخل على من يعوده، قال: «لا بأس ؛ طهور إن شاء الله ». رواه البخاري

(145) Chapter: Supplication for the Sick


Ibn 'Abbas (May Allah be pleased with them) reported:
The Prophet (ﷺ) visited a bedouin who was sick. Whenever he visited an ailing person, he would say, "La ba'sa, tahurun in sha' Allah [No harm, (it will be a) purification (from sins), if Allah wills]."

[Al-Bukhari].

Commentary: According to this Hadith, a patient should be told that his disease will purge out his sins. To sit beside the sick, to comfort his heart and to say a few words of sympathy to him was the Prophet's practice.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

৮/৯১৩। আবূ সা‘ঈদ খুদরী রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, জিবরীল নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট এসে বললেন, ‘হে মুহাম্মাদ! আপনি কি অসুস্থ?’ তিনি বললেন, ‘‘হ্যাঁ।’’ জিবরীল তখন এই দো‘আটি পড়লেন, ‘বিসমিল্লা-হি আরক্বীকা, মিন কুল্লি শাইয়িন ইউ’যীকা, অমিন শার্রি কুল্লি নাফসিন আউ ‘আইনি হা-সিদ, আল্লা-হু য়্যাশফীকা, বিসমিল্লা-হি আরক্বীকা।’

অর্থাৎ আমি তোমাকে আল্লাহর নাম নিয়ে প্রত্যেক কষ্টদায়ক বস্তু থেকে এবং প্রত্যেক আত্মা অথবা বদনজরের অনিষ্ট থেকে মুক্তি পেতে ঝাড়ছি। আল্লাহ তোমাকে আরোগ্য দান করুন। আল্লাহর নাম নিয়ে তোমাকে ঝাড়ছি। (মুসলিম) [1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

وَعَنْ أَبي سَعِيدٍ الخُدرِي رضي الله عنه: أَنَّ جِبرِيلَ أتَى النَّبيَّ صلى الله عليه وسلم، فَقَالَ: يَا مُحَمَّدُ، اشْتَكَيْتَ ؟ قَالَ: «نَعَمْ» قَالَ: بِسْمِ الله أَرْقِيكَ، مِنْ كُلِّ شَيْءٍ يُؤْذِيكَ، مِنْ شَرِّ كُلِّ نَفْسٍ أَوْ عَيْنِ حَاسِدٍ، اللهُ يَشْفِيكَ، بِسمِ اللهِ أُرقِيكَ . رواه مسلم

وعن أبي سعيد الخدري رضي الله عنه: أن جبريل أتى النبي صلى الله عليه وسلم، فقال: يا محمد، اشتكيت ؟ قال: «نعم» قال: بسم الله أرقيك، من كل شيء يؤذيك، من شر كل نفس أو عين حاسد، الله يشفيك، بسم الله أرقيك . رواه مسلم

(145) Chapter: Supplication for the Sick


Abu Sa'id Al-Khudri (May Allah be pleased with him) reported:
Jibril (Gabriel) came to the Prophet (ﷺ) and said: "O Muhammad (ﷺ)! Do you feel sick?" He (ﷺ) said, "Yes." Jibril supplicated thus (i.e., he performed Ruqyah): "Bismillahi arqika, min kulli shay'in yu'dhika, min sharri kulli nafsin aw 'ayni hasidi, Allahu yashfika, bismillahi arqika. [With the Name of Allah. I recite over you (to cleanse you) from all that troubles you, and from every harmful mischief and from the evil of the eyes of an envier. Allah will cure you; and with the Name of Allah, I recite over you]."

[Muslim].

Commentary: This Hadith clearly tells us that the Prophet (PBUH) was not free from the basic attributes of human nature and occasionally he also fell ill. Angel Jibril (Gabriel) therefore prayed for his health and safety against all those things which could harm him. These prayers should be recited after the Prophet's practice.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৫: অসুস্থ মানুষের জন্য যে সব দো‘আ বলা হয়

৯/৯১৪। আবূ সা‘ঈদ খুদরী রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু এবং আবূ হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, তাঁরা উভয়েই রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর প্রতি সাক্ষ্য দিচ্ছেন যে, তিনি বলেছেন, ‘‘যে ব্যক্তি ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, অল্লাহু আকবার’ (অর্থাৎ আল্লাহ ছাড়া কোন সত্য উপাস্য নেই এবং আল্লাহ সবচেয়ে বড়) বলে, আল্লাহ তার সত্যায়ন করে বলেন, ‘আমি ছাড়া কোন (সত্য) উপাস্য নেই এবং আমি সবচেয়ে বড়।’

আর যখন সে বলে ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু অহদাহু লা শারীকা লাহ’ (অর্থাৎ আল্লাহ ছাড়া কোন সত্য উপাস্য নেই, তিনি একক, তাঁর কোন অংশী নেই), তখন আল্লাহ বলেন, ‘আমি ছাড়া কোন সত্য উপাস্য নেই, আমি একক, আমার কোন অংশী নেই।’

আর যখন সে বলে ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, লাহুল মুলকু অলাহুল হামদ’ (অর্থাৎ আল্লাহ ছাড়া কোন সত্য উপাস্য নেই, সার্বভৌম ক্ষমতা তাঁরই এবং তাঁরই যাবতীয় প্রশংসা), তখন আল্লাহ বলেন, ‘আমি ছাড়া কোন সত্য উপাস্য নেই, সার্বভৌম ক্ষমতা আমারই এবং আমারই যাবতীয় প্রশংসা।’

আর যখন সে বলে, ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, অলা হাওলা অলা ক্বুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ’ (অর্থাৎ আল্লাহ ছাড়া কোন (সত্য) উপাস্য নেই এবং আল্লাহর প্রেরণা দান ছাড়া পাপ থেকে ফিরার এবং সৎকাজ করার বা নড়া-চড়ার শক্তি নেই), তখন আল্লাহ বলেন, ‘আমি ছাড়া কোন (সত্য) উপাস্য নেই এবং আমার প্রেরণা দান ছাড়া পাপ থেকে ফিরার এবং সৎকাজ করার বা নড়া-চড়ার শক্তি নেই।’

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলতেন, ‘‘যে ব্যক্তি তার পীড়িত অবস্থায় এটি পড়ে মারা যাবে, জাহান্নামের আগুন তাকে খাবে না।’’ (অর্থাৎ সে জাহান্নামে যাবে না।) (তিরমিযী, হাসান সূত্রে) [1]

(145) بَابُ مَا يُدْعٰى بِهِ لِلْمَرِيْضِ

وَعَنْ أَبي سعيد الخدري وأَبِي هُرَيرَةَ رَضِيَ اللهُ عَنهُمَا: أنَّهُمَا شَهِدَا عَلَى رَسُول اللهِ صلى الله عليه وسلم، أنّه قَالَ: « مَنْ قَالَ: لاَ إِلٰهَ إِلاَّ اللهُ وَاللهُ أكْبَرُ، صَدَّقَهُ رَبُّهُ، فَقَالَ: لاَ إِلٰهَ إِلاَّ أنَا وَأَنَا أكْبَرُ . وَإِذَا قَالَ: لاَ إِلٰهَ إِلاَّ اللهُ وَحدَهُ لاَ شَرِيكَ لَهُ، قَالَ: يَقُولُ: لاَ إِلٰهَ إلاَّ أنَا وَحْدِي لاَ شَريكَ لِي . وَإِذَا قَالَ: لاَ إِلٰهَ إِلاَّ اللهُ لَهُ المُلْكُ وَلَهُ الحَمْدُ، قَالَ: لاَ إِلٰهَ إِلاَّ أنَا لِيَ المُلْكُ وَلِيَ الحَمْدُ . وَإِذَا قَالَ: لاَ إله إِلاَّ اللهُ وَلاَ حَوْلَ وَلاَ قُوَّةَ إِلاَّ باللهِ، قَالَ: لاَ إِلٰهَ إِلاَّ أنَا وَلاَ حَوْلَ وَلاَ قُوَّةَ إِلاَّ بِي » وَكَانَ يقُولُ: « مَنْ قَالَهَا في مَرَضِهِ ثُمَّ مَاتَ لَمْ تَطْعَمْهُ النَّارُ ». رواه الترمذي، وَقَالَ: «حديث حسن »

وعن أبي سعيد الخدري وأبي هريرة رضي الله عنهما: أنهما شهدا على رسول الله صلى الله عليه وسلم، أنه قال: « من قال: لا إله إلا الله والله أكبر، صدقه ربه، فقال: لا إله إلا أنا وأنا أكبر . وإذا قال: لا إله إلا الله وحده لا شريك له، قال: يقول: لا إله إلا أنا وحدي لا شريك لي . وإذا قال: لا إله إلا الله له الملك وله الحمد، قال: لا إله إلا أنا لي الملك ولي الحمد . وإذا قال: لا إله إلا الله ولا حول ولا قوة إلا بالله، قال: لا إله إلا أنا ولا حول ولا قوة إلا بي » وكان يقول: « من قالها في مرضه ثم مات لم تطعمه النار ». رواه الترمذي، وقال: «حديث حسن »

(145) Chapter: Supplication for the Sick


Abu Sa'id Al-Khudri and Abu Hurairah (May Allah be pleased with them) reported:
The Messenger of Allah (ﷺ) said, "If a person says: 'La ilaha illallahu wallahu Akbar (There is no true god except Allah and Allah is Greatest)', his Rubb responds to him and affirms: '(Yes!) There is no true god except I, and I am the Greatest.' When he says: 'La ilaha illallahu Wahdahu la sharika Lahu (There is no true god except Allah, the One, He has no partner).' Allah (SWT) affirms: '(Yes!) There is no true god except I. I have no partner.' When he says: 'La ilaha illallahu Lahul mulku wa Lahul-hamdu (the sovereignty belongs to Him and all the praise is due to Him).' He (SWT) affirms: '(Yes!) There is no true god except I, Mine is the praise and to Me belongs the sovereignty.' When he says: 'La ilaha illallahu wa la hawla wa la quwwata illa Billah (There is no true god except Allah, and there is no might and power but with Allah).' He (SWT) affirms: '(Yes!) There is no true god except I, and there is no might and power but with Me."' The Messenger of Allah (ﷺ) added, "He who recites this during his illness and dies, will not be touched by the Fire (Hell)."

[At-Tirmidhi].

Commentary: This Hadith points out the excellence of the words mentioned above. This is so because of great meaning they have, namely the firm belief in Allah, His Oneness and Glorification; that to Him Alone we should return, upon Him Alone we should rely, and to Him Alone we should express gratefulness. If somebody utters them during his illness, his life is sure to come to an end in a good way, that is, he will go to Jannah.


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৬: রোগীর বাড়ির লোককে রোগীর অবস্থা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা উত্তম

১/৯১৫। ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, আলী ইবনে আবী ত্বালেব রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট হতে তাঁর সেই অসুস্থ অবস্থায় বের হলেন, যাতে তিনি মৃত্যুবরণ করেছিলেন। অতঃপর লোকেরা বলল, ‘হে হাসানের পিতা! রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কী অবস্থায় সকাল করলেন?’ তিনি বললেন, ‘আলহামদু লিল্লাহ, তিনি ভাল অবস্থায় সকাল করলেন।’ (বুখারী) [1]

(146) - بَابُ اِسْتِحْبَابِ سُؤَالِ أهلِ الْمَرِيْضِ عَنْ حَالِه

عَنِ ابنِ عَبَّاسٍ رَضِيَ اللهُ عَنهُمَا: أَنَّ عَلِيَّ بْنَ أَبي طَالِبٍ رضي الله عنه، خَرَجَ مِنْ عِنْدِ رَسُولِ اللهِ صلى الله عليه وسلم، فِي وَجَعِهِ الَّذِي تُوُفِّيَ فِيهِ، فَقَالَ النَّاسُ: يَا أَبَا الحَسَنِ، كَيْفَ أصْبَحَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم ؟ قَالَ: أصْبَحَ بِحَمْدِ اللهِ بَارِئاً . رواه البخاري

عن ابن عباس رضي الله عنهما: أن علي بن أبي طالب رضي الله عنه، خرج من عند رسول الله صلى الله عليه وسلم، في وجعه الذي توفي فيه، فقال الناس: يا أبا الحسن، كيف أصبح رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم ؟ قال: أصبح بحمد الله بارئا . رواه البخاري

(146) Chapter: Recommendation of Inquiring the Family Members of the Patient about his Condition


Ibn `Abbas (May Allah be pleased with them) reported:
When `Ali (May Allah be pleased with him) came out after visiting the Messenger of Allah (ﷺ) during his last illness, the people asked: "How is Messenger of Allah (ﷺ), O Abul-Hasan?'' He replied: "Praise be to Allah, he (ﷺ) is feeling better.''


[Al-Bukhari].

Commentary: This Hadith shows that if a patient is in a critical condition and people are advised not to visit him, it will be appropriate to enquire of his blood relatives about his health. The family members, too, are supposed to give an encouraging report about the patient's condition to enquirers.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৭: জীবন থেকে নিরাশ হওয়ার সময়ে দো‘আ

১/৯১৬। আয়েশা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহা বলেন, আমি নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে এই দো‘আ বলতে শুনেছি, যখন তিনি (তাঁর মৃত্যুর পূর্বমুহূর্তে) আমার উপর ঠেস লাগিয়ে ছিলেন, ‘আল্লা-হুম্মাগফিরলী অরহামনী অ আলহিক্বনী বির্রাফীক্বিল আ‘লা।’ অর্থাৎ আল্লাহ গো! আমাকে ক্ষমা কর, আমার প্রতি দয়া কর এবং আমাকে মহান সাথীর সাথে মিলিত কর। (বুখারী-মুসলিম) [1]

(147) بَابُ مَا يَقُوْلُهُ مَنْ أَيِسَ مِنْ حَيَاتِهِ

عَن عَائِشَةَ رَضِيَ اللهُ عَنهَا، قَالَتْ: سَمِعْتُ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم وَهُوَ مُسْتَنِدٌ إلَيَّ، يَقُولُ: « اَللهم اغْفِرْ لِي وارْحَمْنِي، وأَلْحِقْنِي بِالرَّفِيقِ الأَعْلَى ». متفقٌ عَلَيْهِ

عن عائشة رضي الله عنها، قالت: سمعت النبي صلى الله عليه وسلم وهو مستند إلي، يقول: « اللهم اغفر لي وارحمني، وألحقني بالرفيق الأعلى ». متفق عليه

(147) Chapter: Supplication when one is disappointed about his Life


`Aishah (May Allah be pleased with her) reported:
While the Prophet (ﷺ) was reclining against me (during his last illness) I heard him saying: "Allahumma-ghfir li, warhamni, wa alhiqni bir Rafiqil-A`la (O Allah, forgive me, bestow Your Mercy on me and let me join with the exalted companions.''


[Al-Bukhari and Muslim].

Commentary: Most of the `Ulama' believe that Allah is the Sublime Companion (Ar-Rafiq Al-A`la). Ar-Rafiq (the Companion) is one of the Divine Names. Some take it to mean the supreme communion of angels, Prophets, martyrs and the righteous. Prophet Yusuf (Joseph) had prayed to Allah, "... And join me with the righteous.'' (12:101).

At the hour of death, man should cut off his link with the world and unite it with the Hereafter. By seeking Divine forgiveness, the Prophet (PBUH) aimed at moral elevation and abundance of goodness. Otherwise, he was protected by Allah and immune against sinning.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৭: জীবন থেকে নিরাশ হওয়ার সময়ে দো‘আ

২/৯১৭। আয়িশাহ রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে দেখেছি, তাঁর উপর তখন মৃত্যু ছেয়ে গিয়েছিল, তাঁর সামনে একটি পানি ভর্তি পাত্র ছিল। তাতে তিনি নিজের (ডান) হাত প্রবেশ করাচ্ছিলেন, অতঃপর (হাতের সাথে লেগে থাকা) পানি দিয়ে তাঁর মুখমন্ডল মুছছিলেন এবং বলছিলেনঃ আল্লাহ! মৃত্যুর কঠোরতা ও তার ভীষণ কষ্টের বিরুদ্ধে আমাকে সহায়তা কর। (তিরমিযী)[1]

(147) بَابُ مَا يَقُوْلُهُ مَنْ أَيِسَ مِنْ حَيَاتِهِ

وعنها قالت: رأَيْتُ رسولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم وهُوَ بِالموتِ، عِندهُ قدحٌ فِيهِ مَاءٌ، وهُو يدخِلُ يدهُ في القَدَحِ، ثم يمسَحُ وجهَهُ بالماءِ، ثم يقول: «اَللهم أَعِنِّي علٰى غمرَاتِ الموْتِ وَسَكَراتِ المَوْتِ » رواه الترمذي.

وعنها قالت: رأيت رسول الله صلى الله عليه وسلم وهو بالموت، عنده قدح فيه ماء، وهو يدخل يده في القدح، ثم يمسح وجهه بالماء، ثم يقول: «اللهم أعني على غمرات الموت وسكرات الموت » رواه الترمذي.

(147) Chapter: Supplication when one is disappointed about his Life


'Aishah (May Allah be pleased with her) reported:
I saw the Messenger of Allah (ﷺ) when he was at the point of death. He had a drinking bowl with water in it. He would dip his hand into the bowl, and wipe his face. Then he would supplicate, "O Allah! Help me over pangs and agony of death."

[At-Tirmidhi].

Commentary: This Hadith, too, affirms the Prophet's creatural aspect, that is to say, like other humans he was also overwhelmed by the intensity of illness and felt its agony. In his last days, he suffered from intense fever. In order to
decrease the high temperature, he repeatedly wet his right hand with water and passed it over his face. Like all mortals, he too, experienced the agony of the last moments and prayed to Allah for its alleviation and sought His Help. Sheikh Al-Albani considers the authenticity of this Hadith as deficient. However, the Prophet (PBUH) is authentically reported to have lost consciousness during severe illness. Both the Ahadith of this chapter reveal that man should seek help from Allah at the hour of his departure from this world.


হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai'f)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick

পরিচ্ছেদঃ ১৪৮: পীড়িতের পরিবার এবং তার সেবাকারীদেরকে পীড়িতের সাথে সদ্ব্যবহার করা এবং সে ক্ষেত্রে কষ্ট বরণ করা ও তার পক্ষ থেকে উদ্ভূত বিরক্তিকর পরিস্থিতিতে ধৈর্য ধারণ করার জন্য উপদেশ প্রদান। অনুরূপভাবে কোন ইসলামী দণ্ডবিধি প্রয়োগজনিত কারণে যার মৃত্যু আসন্ন, তার সাথেও সদ্ব্যবহার করার উপর তাকীদ

৩/৯১৮। ইমরান ইবনে হুসাইন রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, জুহাইনা গোত্রের এক মহিলা ব্যভিচার করে গর্ভবতী হয়েছিল। সে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট এসে বলল, ‘হে আল্লাহর রাসূল! আমি শাস্তি পাওয়ার যোগ্যা, সুতরাং আপনি আমাকে শাস্তি দিন।’ অতএব রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাঁর অভিভাবককে ডেকে বললেন, ‘‘এর সাথে সদ্ব্যবহার কর। অতঃপর সে যখন সন্তান ভূমিষ্ট করবে তখন একে আমার নিকট নিয়ে এসো।’’ সে তাই করল। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার উপর তার কাপড়খানি মযবুত করে বাঁধার আদেশ করলেন। অতঃপর তাকে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর আদেশত্রুমে পাথর মেরে শেষ করে দেওয়া হল। অতঃপর তিনি তার জানাযার নামায পড়লেন। (বুখারী) [1]

(148) بَابُ اِسْتِحْبَابِ وَصِيَّةِ أَهْلِ الْمَرِيْضِ وَمَنْ يَّخْدُمُهُ بِالْإِحْسَانِ إِلَيْهِ وَاحْتِمَالِهِ وَالصَّبْرِ عَلٰى مَا يَشُقُّ مِنْ أَمْرِهِ وَكَذَا الْوَصِيَّةِ بِمَنْ قَرُبَ سَبَبُ مَوْتِهِ بِحَدٍّ أَوْ قِصَاصٍ وَنَحْوِهِمَا

عَنْ عِمْرانَ بنِ الحُصَيْنِ رَضِيَ اللهُ عَنهُمَا: أَنَّ امْرَأَةً مِنْ جُهَيْنَةَ أتَتِ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم وَهِيَ حُبْلَى مِنَ الزِّنَا، فَقَالَتْ: يَا رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم، أَصَبْتُ حَدّاً فَأَقِمْهُ عَلَيَّ، فَدَعَا رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم وَلِيَّهَا، فَقَالَ: «أحْسِنْ إِلَيْهَا، فَإذَا وَضَعَتْ فَأتِنِي بِهَا » فَفَعَلَ، فَأمَرَ بِهَا النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم، فَشُدَّتْ عَلَيْهَا ثِيَابُهَا، ثُمَّ أمَرَ بِهَا فَرُجِمَت، ثُمَّ صَلَّى عَلَيْهَا . رواه مسلم

عن عمران بن الحصين رضي الله عنهما: أن امرأة من جهينة أتت النبي صلى الله عليه وسلم وهي حبلى من الزنا، فقالت: يا رسول الله صلى الله عليه وسلم، أصبت حدا فأقمه علي، فدعا رسول الله صلى الله عليه وسلم صلى الله عليه وسلم وليها، فقال: «أحسن إليها، فإذا وضعت فأتني بها » ففعل، فأمر بها النبي صلى الله عليه وسلم، فشدت عليها ثيابها، ثم أمر بها فرجمت، ثم صلى عليها . رواه مسلم

(148) Chapter: Instructing the Patient's family to be kind to him - Consoling the Patients and showing kindness to one Facing Death SentenceInstructing the Patient's family to be kind to him - Consoling the Patients and showing kindness to one Facing Death Sentence


`Imran bin Husain (May Allah be pleased with them) reported:
A woman belonging to the Juhainah tribe came to the Messenger of Allah (ﷺ) after having conceived from Zina. She submitted: "O Messenger of Allah! I am liable to Hadd (punishment ordained by Allah), so execute it.'' The Messenger of Allah (ﷺ) called her guardian and said, "Treat her well and bring her to me after delivery.'' He acted accordingly. Then the Messenger of Allah (ﷺ) commanded to tie her clothes firmly around her and then stoned her to death. He (ﷺ) then offered funeral prayer for her.


[Muslim].

Commentary: This Hadith has relevance to the theme of the chapter as we see it. Moreover, it reveals that if a woman becomes pregnant after committing adultery, she will not be subjected to punishment immediately. Instead, the penalty will take place after childbirth. This will certainly contribute to the remission of her sins and will also be a factor in offering the funeral prayer for her.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
৬/ রোগীদর্শন ও জানাযায় অংশগ্রহণ (كتاب عيادة المريض وتشييع الميت والصلاة عليه وحضور دفنه المكث عند قبره بعد دفنه) The Book of Visiting the Sick
দেখানো হচ্ছেঃ থেকে ২০ পর্যন্ত, সর্বমোট ৬৪ টি রেকর্ডের মধ্য থেকে পাতা নাম্বারঃ 1 2 3 4 পরের পাতা »