২২৪৮

পরিচ্ছেদঃ দ্বিতীয় অনুচ্ছেদ

২২৪৮-[২৬] ’উমার ইবনুল খাত্ত্বাব (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, একবার আমি নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর কাছে ’উমরাহ্ করার অনুমতি চাইলাম। তিনি (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) আমাকে ’উমরার জন্য অনুমতি দিলেন এবং বললেন, হে আমার ছোট ভাই! তোমার দু’আয় আমাদেরকেও অন্তর্ভুক্ত করো এবং আমাদেরকে ভুলে যেও না। ’উমার (রাঃ) বলেন, তিনি (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) আমাকে এমন একটি কথা বললেন, যার বিনিময়ে আমাকে সারা দুনিয়া দিয়ে দেয়া হয়, তবুও আমি এত খুশি হতাম না। (আবূ দাঊদ, তিরমিযী; কিন্তু তিরমিযীতে ’আমাকে ভুলে যেও না’ পর্যন্ত বর্ণিত হয়েছে)[1]

اَلْفَصْلُ الثَّانِىْ

وَعَنْ عُمَرَ بْنِ الْخَطَّابِ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ قَالَ اسْتَأْذَنْتُ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فِي الْعُمْرَةِ فَأَذِنَ لِي وَقَالَ: «أَشْرِكْنَا يَا أُخَيُّ فِي دُعَائِكَ وَلَا تَنْسَنَا» . فَقَالَ كَلِمَةً مَا يَسُرُّنِي أَنَّ لِيَ بِهَا الدُّنْيَا. رَوَاهُ أَبُو دَاوُدَ وَالتِّرْمِذِيُّ وَانْتَهَتْ رِوَايَتُهُ عِنْدَ قَوْلِهِ «لَا تنسنا»

وعن عمر بن الخطاب رضي الله عنه قال استأذنت النبي صلى الله عليه وسلم في العمرة فأذن لي وقال: «أشركنا يا أخي في دعائك ولا تنسنا» . فقال كلمة ما يسرني أن لي بها الدنيا. رواه أبو داود والترمذي وانتهت روايته عند قوله «لا تنسنا»

ব্যাখ্যা: (اسْتَأْذَنْتُ النَّبِىَّ ﷺ فِى الْعُمْرَةِ) হাফেয ইবনু হাজার আসকালানী (রহঃ) বলেন, উল্লেখিত ‘উমরাটি ছিল সেই ‘উমরাহ্ যা ‘উমার (রাঃ) জাহিলী যুগে করার জন্য মানৎ করেছিলেন। এমনটাই মতামত ব্যক্ত করেছেন মুল্লা ‘আলী কারী হানাফী (রহঃ)-ও।

(فِىْ دُعَائِكَ) এ কথার মাধ্যমে রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর বিনয় প্রকাশ পেয়েছে এবং তিনি উম্মাতের প্রতি একটি বাণী পেশ করেছেন এই মর্মে যে, তারা যেন দু‘আ করার সময় শুধু নিজেদের জন্য না করে তাদের দু‘আয় সমগ্র উম্মাতের মুসলিমাহকে অন্তর্ভুক্ত করে দু‘আ করেন।

বিশেষ করে যে সমস্ত স্থানগুলোতে দু‘আ কবূলের প্রভূত সম্ভাবনা রয়েছে সে সমস্ত স্থানে দু‘আ করলে।


হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai'f)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
মিশকাতুল মাসাবীহ (মিশকাত)
পর্ব-৯: দু‘আ (كتاب الدعوات)