২৬৬

পরিচ্ছেদঃ

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কখনো কাউকে প্রহার করতেন না:

২৬৬. আয়েশা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, একমাত্র আল্লাহর পথে জিহাদ ছাড়া কখনো রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম স্বীয় হাত দ্বারা (ইচ্ছাকৃতভাবে) কাউকে প্রহার করেননি এবং কোন দাস-দাসী বা স্ত্রীলোককেও প্রহার করেননি।[1]

حَدَّثَنَا هَارُونُ بْنُ إِسْحَاقَ الْهَمْدَانِيُّ ، قَالَ : حَدَّثَنَا عَبْدَةُ ، عَنْ هِشَامِ بْنِ عُرْوَةَ ، عَنْ أَبِيهِ ، عَنْ عَائِشَةَ ، قَالَتْ : " مَا ضَرَبَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ , بِيَدِهِ شَيْئًا قَطُّ , إِلا أَنْ يُجَاهِدَ فِي سَبِيلِ اللَّهِ ، وَلا ضَرَبَ خَادِمًا أَوِ امْرَأَةً " .

حدثنا هارون بن إسحاق الهمداني ، قال : حدثنا عبدة ، عن هشام بن عروة ، عن أبيه ، عن عائشة ، قالت : " ما ضرب رسول الله صلى الله عليه وسلم , بيده شيئا قط , إلا أن يجاهد في سبيل الله ، ولا ضرب خادما أو امرأة " .


'Aayeshah Radiyallahu 'Anha reports: ''Rasulullah Sallallahu 'Alayhi Wasallam did noy hit anything with his mubaarak hands, besides the time when he made jihaad in the Path of Allah. He did not hit a servant nor a women (wife, slave girl etc.)''.

‘হুদুদ’ হলো শরীয়তের নির্ধারিত শাস্তি এবং তা’যীর হলো শাসন করা। প্রহার করা দ্বারা ইচ্ছাকৃতভাবে রাগান্বিত হয়ে মারা উদ্দেশ্য। অনিচ্ছাকৃতভাবে আঘাত লেগে যাওয়াকে প্রহার বলে না। বিশেষভাবে খাদিম ও নারীর কথা এজন্য উল্লেখ করেছেন যে, সাধারণত মানুষ এদেরকে অল্পতে মেরে থাকে। কিন্তু রাসূলুল্লাহ (সাঃ) কখনো এদেরকেও মারধর করেননি। যদিও শাসনের উদ্দেশ্যে হালকা মারধর বৈধ আছে।


Hudhud is included in the Path of Allah and also jihaad. By hitting, it is meant to hit in anger, this in general usage is called hitting. This is not against one hitting un-intentionally and playfully, as has been mentioned in some ahaadith.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
সহীহ শামায়েলে তিরমিযী
৪৮. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) এর চরিত্র (মাধুর্য) (باب ما جاء فى خلق تواضع رسول الله ﷺ)