২৭৪৭

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহ্‌ তা'আলা হাঁচি পছন্দ করেন আর হাফিফা (হাই তোলা) অপছন্দ করেন।

২৭৪৭. হাসান ইবন আলী খাল্লাল (রহঃ) ..... আবূ হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ আল্লাহ্ তা’আলা হাঁচি পছন্দ করেন কিন্তু হাই না পছন্দ করেন। সুতরাং তোমাদের কারো হাঁচি এলে সে যদি বলে "আলহামদুলিল্লাহ্" তবে যে কেউ তা শুনতে পাবে তার উপর হক হল "ইয়ারহামুকাল্লাহ্" বলা। আর হাফিকার (হাই তোলার) ব্যাপার হল, তোমাদের কারো যদি হাই উঠে তবে যথাসাধ্য সে যেন তা রোধ করে এবং সে যেন হাঃ হাঃ না করে। কেননা এটি শয়তানের পক্ষ থেকে। সে তাতে হাসে। সহীহ, ইরওয়া ৭৭৬, বুখারি, তিরমিজী হাদিস নম্বরঃ ২৭৪৭ [আল মাদানী প্রকাশনী]

(আবু ঈসা বলেন)এই হাদীসটি সহীহ। ইবন আজলান (রহঃ) এর রিওয়ায়ত (২৭৪৬ নং) থেকে এটি অধিক সহীহ। সাঈদ আল-মাকবুরী (রহঃ) এর রিওয়ায়ত বর্ণনার ক্ষেত্রে ইবন আবূ যি’ব (রহঃ) হলেন ইবন আজলান (রহঃ) এর তুলনায় অধিক সংরক্ষক ও নির্ভরযোগ্য।

আবূ বকর আত্তার বাসরীকে আলী ইবন মাদীনী-ইয়াহ্ইয়া ইবন সাঈদ (রহঃ) সূত্রে আলোচনা করতে শুনেছি যে, ইয়াহ্ইয়া (রহঃ) বলেনঃ মুহাম্মাদ ইবন আজলান (রহঃ) বলেছেনঃ সাঈদ আল-মাকবুরী তাঁর রিওয়ায়ত সমূহের মধ্যে কতগুলো তো তিনি আবূ হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে সরাসরি বর্ণনা করেছেন আর কতগুলো তিনি জনৈক ব্যক্তির মাধ্যমে আবূ হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণনা করেছেন। কিন্তু আমার কছে এইগুলোর একটি আরেকটির সাথে মিশে যাওয়ায় আমি সবগুলোই সাঈদের মাধ্যমে আবূ হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণনা করে দিয়েছি।

بَابُ مَا جَاءَ إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ العُطَاسَ وَيَكْرَهُ التَّثَاؤُبَ

حَدَّثَنَا الْحَسَنُ بْنُ عَلِيٍّ الْخَلاَّلُ، حَدَّثَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ، أَخْبَرَنَا ابْنُ أَبِي ذِئْبٍ، عَنْ سَعِيدِ بْنِ أَبِي سَعِيدٍ الْمَقْبُرِيِّ، عَنْ أَبِيهِ، عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم ‏ "‏ إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ الْعُطَاسَ وَيَكْرَهُ التَّثَاؤُبَ فَإِذَا عَطَسَ أَحَدُكُمْ فَقَالَ الْحَمْدُ لِلَّهِ فَحَقٌّ عَلَى كُلِّ مَنْ سَمِعَهُ أَنْ يَقُولَ يَرْحَمُكَ اللَّهُ وَأَمَّا التَّثَاؤُبُ فَإِذَا تَثَاءَبَ أَحَدُكُمْ فَلْيَرُدَّهُ مَا اسْتَطَاعَ وَلاَ يَقُولَنَّ هَاهْ هَاهْ فَإِنَّمَا ذَلِكَ مِنَ الشَّيْطَانِ يَضْحَكُ مِنْهُ ‏"‏ ‏.‏ قَالَ أَبُو عِيسَى هَذَا حَدِيثٌ صَحِيحٌ وَهَذَا أَصَحُّ مِنْ حَدِيثِ ابْنِ عَجْلاَنَ ‏.‏ وَابْنُ أَبِي ذِئْبٍ أَحْفَظُ لِحَدِيثِ سَعِيدٍ الْمَقْبُرِيِّ وَأَثْبَتُ مِنْ مُحَمَّدِ بْنِ عَجْلاَنَ ‏.‏ قَالَ سَمِعْتُ أَبَا بَكْرٍ الْعَطَّارَ الْبَصْرِيَّ يَذْكُرُ عَنْ عَلِيِّ بْنِ الْمَدِينِيِّ عَنْ يَحْيَى بْنِ سَعِيدٍ قَالَ قَالَ مُحَمَّدُ بْنُ عَجْلاَنَ أَحَادِيثُ سَعِيدٍ الْمَقْبُرِيِّ رَوَى بَعْضَهَا سَعِيدٌ عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ وَرَوَى بَعْضَهَا سَعِيدٌ عَنْ رَجُلٍ عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ فَاخْتَلَطَتْ عَلَىَّ فَجَعَلْتُهَا عَنْ سَعِيدٍ عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ ‏.‏

حدثنا الحسن بن علي الخلال، حدثنا يزيد بن هارون، أخبرنا ابن أبي ذئب، عن سعيد بن أبي سعيد المقبري، عن أبيه، عن أبي هريرة، قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم ‏ "‏ إن الله يحب العطاس ويكره التثاؤب فإذا عطس أحدكم فقال الحمد لله فحق على كل من سمعه أن يقول يرحمك الله وأما التثاؤب فإذا تثاءب أحدكم فليرده ما استطاع ولا يقولن هاه هاه فإنما ذلك من الشيطان يضحك منه ‏"‏ ‏.‏ قال أبو عيسى هذا حديث صحيح وهذا أصح من حديث ابن عجلان ‏.‏ وابن أبي ذئب أحفظ لحديث سعيد المقبري وأثبت من محمد بن عجلان ‏.‏ قال سمعت أبا بكر العطار البصري يذكر عن علي بن المديني عن يحيى بن سعيد قال قال محمد بن عجلان أحاديث سعيد المقبري روى بعضها سعيد عن أبي هريرة وروى بعضها سعيد عن رجل عن أبي هريرة فاختلطت على فجعلتها عن سعيد عن أبي هريرة ‏.‏


Narrated Abu Hurairah:
that the Messenger of Allah (ﷺ) said: "Indeed Allah loves sneezing and He dislikes the yawn. So when one of you sneezes and says 'Al-Hamdulillah (All praise is due to Allah),' then it is a right due from every one who hears him to say: 'Yarhamukallah (May Allah have mercy upon you)' As for yawning then when one of you yawns let him suppress it as much as possible and not say: "Hah Hah' for that is only from Ash-Shaitan laughing at him."


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
সূনান তিরমিজী (ইসলামিক ফাউন্ডেশন)
৪৬/ কিতাবুল আদব (كتاب الأدب عن رسول الله ﷺ)