২৮১

পরিচ্ছেদঃ ৩৪: স্ত্রীদের সাথে সদ্ব্যবহার করার অসিয়ত

৪/২৮১। ’আমর ইবনু আহ্ওয়াস জুশামী রাদিয়াল্লাহু ’আনহু কর্তৃক বর্ণিত, তিনি বিদায় হজ্জে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে বলতে শুনেছেন, তিনি সর্বপ্রথমে আল্লাহর প্রশংসা ও স্তুতি বর্ণনা করলেন এবং উপদেশ দান ও নসীহত করলেন। অতঃপর তিনি বললেন, ’’শোনো! তোমরা স্ত্রীদের সাথে সদ্ব্যবহার কর। কেননা, তারা তোমাদের নিকট কয়েদী। তোমরা তাদের নিকটে এ (শয্যা-সঙ্গিনী হওয়া, নিজের পবিত্রতা রক্ষা করা এবং তোমাদের মালের রক্ষণাবেক্ষণ ইত্যাদি) ছাড়া অন্য কোনও জিনিসের অধিকার রাখ না। হ্যাঁ, সে যদি কোন প্রকাশ্য অশ্লীলতার কাজ করে (তাহলে তোমরা তাদেরকে শাস্তি দেওয়ার অধিকার রাখ)।

সুতরাং তারা যদি এমন কাজ করে, তবে তাদেরকে বিছানায় আলাদা ছেড়ে দাও এবং তাদেরকে মার। কিন্তু সে মার যেন যন্ত্রণাদায়ক না হয়। অতঃপর তারা যদি তোমাদের অনুগত হয়ে যায়, তবে তাদের জন্য অন্য কোনো পথ অনুসন্ধান করো না। মনে রেখ, তোমাদের স্ত্রীদের উপর তোমাদের অধিকার রয়েছে, অনুরূপ তোমাদের উপর তোমাদের স্ত্রীদের অধিকার রয়েছে। তোমাদের অধিকার হল, তারা যেন তোমাদের বিছানায় ঐ সব লোককে আসতে না দেয়, যাদেরকে তোমরা অপছন্দ কর এবং তারা যেন ঐ সব লোককে তোমাদের বাড়ীতে প্রবেশ করার অনুমতি না দেয়, যাদেরকে তোমরা অপছন্দ কর। আর শোনো! তোমাদের উপর তাদের অধিকার এই যে, তাদেরকে ভালোরূপে খেতে-পরতে দেবে।’’ (তিরমিযী, হাসান সূত্রে) [1]


* কয়েদী অর্থাৎ বন্দিনী। স্বামীর হুকুম পালনের ব্যাপারে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম স্ত্রীকে বন্দিনীর সাথে তুলনা করেছেন।
* যন্ত্রণাদায়ক না হয়ঃ অর্থাৎ তাতে কেটে-ফুটে না যায় এবং কঠিন ব্যথা না হয়।
* অন্য কোন পথ অনুসন্ধান করো নাঃ অর্থাৎ এমন পথ অনুসন্ধান করো না, যাতে তাদেরকে নাজেহাল করে কষ্ট দাও। (অথবা তালাক ইত্যাদি দেওয়ার কথা ভেবো না।)

بَابُ الوَصِيَّةِ بِالنِّسَاءِ - (34)

وعن عَمْرو بنِ الأَحْوَصِ الجُشميِّ رضي اللَّه عنه أَنَّهُ سمِعَ النبي صَلّى االلهُ عَلَيْهِ وسَلَّم في حَجِّةِالْوَداع يقُولُ بعد أَنْ حَمِدَ اللَّه تعالى ، وَأَثنَى علَيْهِ وذآَّر ووعظَ ، ثُمَّ قال: » أَلا واسْتَوْصوا بِالنِّساءِ خَيْراً ،فَإِنَّمَا هُنَّ عَوانٍ عَنْدَآُمْ لَيْس تمْلكُونَ مِنْهُنَّ شَيْئاً غيْرَ ذلِكَ إِلاَّ أَنْ يأْتِينَ بِفَاحشةٍ مُبيِّنةٍ ، فإِنْ فَعلْنَ فَاهْجُروهُنَّفي المضَاجعِ ، واضْربُوهنَّ ضَرْباً غيْر مُبرِّحٍ ، فإِنْ أَطعنَكُمْ فَلا تبْغُوا عَلَيْهِنَّ سبيلا ، أَلا إِنَّ لَكُمْ عَلَى نِسائِكُمْحَقا ، ولِنِسائِكُمْ عَلَيْكُمْ حقا، فَحَقُّكُمْ عَلَيْهنَّ أَن لا يُوطِئْنَ فُرُشكمْ منْ تَكْرهونَ ، وَلا يأْذَنَّ في بُيُوتكمْ لِمنتكْرهونَ ، أَلا وحقُّهُنَّ عَلَيْكُمْ أَن تُحْسنُوا إِليْهنَّ في آِسْوتِهِنَّ وَطعامهنَّ«.رواه الترمذى وقال : حديث حسن صحيحٌ .قوله صَلّى االلهُ عَلَيْهِ وسَلَّم » عوانٍ « أَيْ : أَسِيرَاتٌ ، جمْعُ عانِيةٍ ، بِالْعَيْنِ المُهْمَلَةِ ، وهى الأَسِيرَةُ ،والْعانِي : الأَسِيرُ . شَبَّهَ رسول اللَّه صَلّى االلهُ عَلَيْهِ وسَلَّم المرْأَةَ في دُخُولَهَا تحْتَ حُكْم الزَّوْجِ بالأَسيرِ»والضرْبُ المُبرِّحُ « : هُوَ الشَّاقُّ الشديدُ ، وقوله صَلّى االلهُ عَلَيْهِ وسَلَّم : » فَلا تَبْغُوا عَلَيْهِنَّ سَبِيلاً « أَيْ :لا تَطلُبوا طرِيقاً تحْتجُّونَ بِهِ عَلَيْهِنَّ وَتُؤذونهنَّ بِه،ِ واللَّه أعلم .

وعن عمرو بن الأحوص الجشمي رضي الله عنه أنه سمع النبي صلى االله عليه وسلم في حجةالوداع يقول بعد أن حمد الله تعالى ، وأثنى عليه وذآر ووعظ ، ثم قال: » ألا واستوصوا بالنساء خيرا ،فإنما هن عوان عندآم ليس تملكون منهن شيئا غير ذلك إلا أن يأتين بفاحشة مبينة ، فإن فعلن فاهجروهنفي المضاجع ، واضربوهن ضربا غير مبرح ، فإن أطعنكم فلا تبغوا عليهن سبيلا ، ألا إن لكم على نسائكمحقا ، ولنسائكم عليكم حقا، فحقكم عليهن أن لا يوطئن فرشكم من تكرهون ، ولا يأذن في بيوتكم لمنتكرهون ، ألا وحقهن عليكم أن تحسنوا إليهن في آسوتهن وطعامهن«.رواه الترمذى وقال : حديث حسن صحيح .قوله صلى االله عليه وسلم » عوان « أي : أسيرات ، جمع عانية ، بالعين المهملة ، وهى الأسيرة ،والعاني : الأسير . شبه رسول الله صلى االله عليه وسلم المرأة في دخولها تحت حكم الزوج بالأسير»والضرب المبرح « : هو الشاق الشديد ، وقوله صلى االله عليه وسلم : » فلا تبغوا عليهن سبيلا « أي :لا تطلبوا طريقا تحتجون به عليهن وتؤذونهن به، والله أعلم .

(34) Chapter: Recommendations with regard to Women


'Amr bin Al-Ahwas Al-Jushami (May Allah be pleased with him) reported that he had heard the Prophet (ﷺ) saying on his Farewell Pilgrimage, after praising and glorifying Allah and admonishing people, "Treat women kindly, they are like captives in your hands; you do not owe anything else from them. In case they are guilty of open indecency, then do not share their beds and beat them lightly but if they return to obedience, do not have recourse to anything else against them. You have rights over your wives and they have their rights over you. Your right is that they shall not permit anyone you dislike to enter your home, and their right is that you should treat them well in the matter of food and clothing".

[At- Tirmidhi].

Commentary:

1. Here again we find justification for beating one's wife in case of her persistence in default, but it is to be done in the manner prescribed in the Hadith quoted above.

2. It is the responsibility of the wife that during the absence of her husband, besides the guarding of her own chastity, and property of her husband, she should not let in anyone who is not liked by her husband, however closely related that person be to her.

3. It is the responsibility of the husband to provide, according to his means, good food and clothes to his wife.


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
রিয়াযুস স্বা-লিহীন (রিয়াদুস সালেহীন)
বিবিধ (كتاب المقدمات)