• ৫৬৬৩২ টি সর্বমোট হাদিস আছেঃ
  • ৫৭৫৬ টি প্রশ্নোত্তর ও ফিকাহঃ

 

 

 

 


ভিড়ের কারণে ফজরের আগে পর্যন্ত মুযদালিফার সিমানায় প্রবেশ না করতে পারলে করণীয় কি?


ভিড় অথবা অন্য কোন কারণে মুযদালিফার সিমানায় প্রবেশ না করতে পারলে সেখানে রাত্রিবাস মাফ হয়ে যাবে এবং দম লাগবে না। যেহেতু যা সাধ্যের বাইরে, তা ক্ষমার্হ। ৩৭০ (ঐ)
অবশ্য সতর্কতামূলকভাবে মক্কায় একটি কুরবানী করা উচিৎ। সামর্থ্য না থাকলে মাফ। ৩৭১ (ইবনে উষাইমীন) 

মুযদালিফা থেকে মুআল্লিমের বাস অর্ধরাত্রি পূর্বে তাড়াহুড়া করে চলে যেতে চাইলে করণীয় কি?


মুযদালিফা থেকে মুআল্লিমের বাস অর্ধরাত্রির পূর্বে তাড়াহুড়া করে চলে যেতে চাইলে বাস ছেড়ে পায়ে হেঁটে ফজরের পর মিনায় যাবে। হারিয়ে যাওয়ার ভয় থাকলে বাসেই যাবে। বাধ্য হওয়ার কারণেই তাঁর উপর দম ওয়াজেব হবে না। ৩৭২ (ফাতাওয়া ইবনে উষাইমীন ২/৬০০)

মুযদালিফা থেকে মিনায় কত আগে যাওয়া যায়?


মুযদালিফা থেকে অর্ধরাত্রি পর মিনায় যাওয়া যায়। তবে চন্দ্র অস্ত যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা উত্তম। আর এ শুধু দুর্বল শ্রেণীর মানুষ (ও তাঁদের সহযোগী সঙ্গী) দের জন্য। ৩৭৩ (ফাতাওয়া ইসলামিয়্যাহ ২/২৭২)

অর্ধরাত্রির পর এই শ্রেণীর মানুষের জামরায়ে আক্বাবায় পাথর মেরে মক্কায় হজ্জের তওয়াফও করতে পারে। ৩৭৪ (মাজাল্লাতুল বুহূসিল ইসলামিয়্যাহ ১৩/ ৮৬)

তবে অর্ধরাত্রির পূর্বে রমই ও তওয়াফ করলে তা শুদ্ধ হবে না। করে ফেললে পুনরায় করতে হবে। নচেৎ রমইর জন্য মক্কায় দম দেবে এবং তওয়াফ যূল হজ্জের বা মুহরামের শেষে অথবা যখন ভুল বুঝতে পারবে তখনই মক্কা এসে পূর্ণ করবে। নচেৎ হজ্জ হবে না।

ভিড়ের ভয়ে তওয়াফ ইফায্বাহ সফর করা পর্যন্ত পিছিয়ে রাখা যায় কি? কতদিন পর তা করা যায়?


তওয়াফে ইফায্বাহ সফর করা পর্যন্ত পিছিয়ে রাখা যায়। ভিড়ের ভয়ে যূল হজ্জের শেষের দিকেও করা যায়। বরং সঠিক ওযর থাকলে যুল হজ্জ মাসের পরেও করতে পারে। ৩৭৫ (ঐ ২/৬৪০)

তওয়াফে ইফায্বার পূর্বে কেউ মারা গেলে তাঁর তরফ থেকে তওয়াফ পূর্ণ করতে হবে কি?


তওয়াফে ইফায্বার পূর্বে কেউ মারা গেলে তাঁর তরফ থেকে তওয়াফ পূর্ণ করতে হবে না। ৩৭৬ (ফাতাওয়া ইবনে উষাইমীন ২/৬১২)

পাথর মেরে কেশ মুণ্ডন করার পর তওয়াফে ইফায্বাহর পূর্বে স্ত্রী চুম্বন বা আলিঙ্গনের ফলে বীর্যপাত করলে করণীয় কি?


পাথর মেরে কেশ মুণ্ডন করার পর তওয়াফে ইফায্বাহর পূর্বে স্ত্রী চুম্বন বা আলিঙ্গনের ফলে বীর্যপাত করলে তওবা সহ দম লাগবে।  ৩৭৭ (মাজাল্লাতুল বুহূসিল ইসলামিয়্যাহ ১৩/ ৭৪)

প্রথম হালালের পূর্বে যদি কেউ স্ত্রী সহবাস করে ফেলে, তাহলে তাঁর হজ্জ হবে কি?


প্রথম হালালের পূর্বে যদি কেউ স্ত্রী সহবাস করে ফেলে, তাহলে তাঁর হজ্জ বাতিল হয়ে যাবে। অবশ্য বাকী হজ্জের কাজ তাকে পূরণ করতে হবে এবং কাফফারা স্বরূপ একটি উট কুরবানী দিয়ে তাঁর গোশত মক্কার মিসকীনদের মাঝে বিতরণ করতে হবে। আর ঐ বাতিল হজ্জ নফল হলেও তাকে আগামীতে নতুনভাবে পালন করতে হবে। ৩৭৮ (ফাতাওয়া ইসলামিয়্যাহ ২/২৭২)

ইহরাম অবস্থায় ঘুমিয়ে থাকাকালে স্বপ্নদোষ হলে কোন ক্ষতি হয় কি?


স্বপ্নদোষে বীর্যপাত ঘটলে হজ্জ বা উমরার কোন ক্ষতি হয় না। যেহেতু তা নিজের এখতিয়ারভুক্ত নয়। ৩৭৯ (ঐ ২/২৩৩-২৩৪)

তওয়াফ ইফায্বাহ বা সাঈ কেউ করতে সক্ষম না হলে অন্য কেউ তাঁর নায়েব হয়ে করে দিতে পারে কি?


তওয়াফ ইফায্বাহ বা সাঈ কেউ করতে সক্ষম না হলে অন্য কেউ তাঁর নায়েব হয়ে করে দিতে পারে না। খাট বা ঠেলা গাড়িতে বসে অথবা কারো কাঁধে বা পিঠে চড়ে তাকে নিজে করতে হবে। যদি সম্ভব না হয়, তবে রোগ বা দুর্বলতা দূর হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করবে এবং ইহরাম খুলবে না। যদি আরোগ্যের আশা না থাকে, তবে একটি ছাগল বা ভেড়া যবেহ করে তাঁর গোশত মক্কার গরীবদের মাঝে বিতরণ করে হালাল হয়ে যাবে এবং হজ্জ আগামীতে কাযা করবে। ৩৮০ (ঐ ২/২৪৩)

কোন কারনবশতঃ হজ্জের কুরবানী দিতে না পারলে হাজী কি করবে?


কোন কারনবশতঃ হজ্জের কুরবানী দিতে না পারলে ১০ টি রোযা রাখবে। ৩ টি হজ্জে, আরাফার দিনের পূর্বে রেখে নেবে এবং বাকী ৭ টি দেশে ফিরে রাখবে। আরাফার দিন রোযা রাখবে না। ৩৮১ (ফাতাওয়া মুহিম্মাহ ৩৮ পৃঃ) হজ্জের মধ্যে ঐ তিনটি রোযা তাশরীকের দিনগুলোতে ১১, ১২, ১৩ তারিখেও রাখতে পারে। আর এটা ঐ দিনগুলিতে রোযা রাখা নিষিদ্ধ আইনের ব্যতিক্রম। তবে আরাফার দিনের পুবেই রোযা রেখে নেওয়া উত্তম; যদি তাঁর পূর্ব থেকেই জানা যায় যে, সে কুরবানী দিতে পারবে না। ৩৮২ (ফাতাওয়া ইসলামিয়্যাহ ২/২৯৫-২৯৬)

মক্কাবাসী হাজীদের জন্য ঐ কুরবানী নেই। মহান আল্লাহ বলেছেন, “অতঃপর যখন তোমরা নিরাপদ হবে, তখন তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি হজ্জের প্রাক্কালে উমরাহ দ্বারা লাভবান হতে চায়, সে সহজলভ্য কুরবানী করবে। কিন্তু যদি কেউ কুরবানী না পায় (বা দিতে অক্ষম হয়), তাহলে তাকে হজ্জের সময় তিন দিন এবং গৃহে প্রত্যাবর্তনের পর সাত দিন--- এই পূর্ণ দশ দিন রোযা পালন করতে হবে। এই নিয়ম সেই ব্যক্তির জন্য, যার পরিবার পরিজন পবিত্র কা’বার নিকটে (মক্কায়)বাস করে না।” (বাকারাহঃ ১৯৬)

পেজ ন্যাভিগেশন

সর্বমোটঃ  126 টি বিষয় দেখান হচ্ছে।