Donate Now
কীবোর্ড সিলেক্টরঃ ফনেটিক বিজয় ইউনিজয়   ইংরেজী
হাদিস প্রশ্নোত্তর/দু'আ/গ্রন্থ প্রশ্নোত্তর (বাংলা হাদিস) গুগল হুবুহু সার্চ
 
 
Donate Now!

প্রশ্ন করেছেনঃ মোঃ সাইফুল ইসলাম | তারিখঃ 2014-01-13

প্রশ্ন নম্বরঃ
86

আস-সালামু আলাইকুম। আমি আপনাদের নতুন পাটক। এই সাইট টা আমাকে অনেক মুগ্ধ করেসে। আপনাদের কে অনেক ধন্যবাদ।
আমি এক টি প্রশ্ন করতে চাই টা হচ্ছে...

১।প্রশ্নঃ এক পিতার চার পুত্র সন্তান আসে। এদের মধ্যে এক সন্তান অনেক বড় চাকরী করে এবং অনেক টাকা উপাজ্জন করে সে বাবার উপর অনেক জুলুম এবং দেখা শুনা করে না। সে কারনে বাবা রাগ করে তার সব সম্পদ বাকী তিন ছেলেকে দিল এবং সামান্য কিছু সম্পদ সেই চাকরী জীবী ছেলেকে দিল। এতে সেই চাকরী জীবী ছেলে এটা মেনে নেতে পারলো না এবং সে অনেক কষ্ট বা দুঃখ পেল।

এতে পিতার এই সম্পদ বণ্টন করা কি ইসলাম সমর্থন করে কি?

২। আমার প্রশ্ন হচ্ছে সন্তান যদি কোন ভুল বা দোষ করেই থাকে সেক্ষেত্রে তার শাস্তি মহান আল্লাহ দেবে সে কেন তার সম্পদ থেকে বঞ্ছিত করবে। 
৩। কোন এক বাংলাদেশি টিভি চ্যানেল ১ নম্বের প্রশ্ন করা হয়েছিল এবং উত্তর দিয়েছিল বাবা ইচ্ছা করলে সেই চাকরী জীবী ছেলে কে তার সম্পদ থেকে বঞ্ছিত করতে পারবে এবং এটা নাকি ইসলাম সমর্থন করে।
এই টা শুনার পর আমার মনে confusion হচ্ছে। 

আপনাদের কাছে আমার আকুল আবেদন উপরের প্রশ্নের উত্তর দিতে ভুলবেন না।

আপনাদের প্রিয় পাটক

মোঃ সাইফুল ইসলাম

উত্তরঃ

বিশেষ কোন অপরাধের কারণে পিতা-মাতা কর্তৃক সন্তান (ছেলে/মেয়ে)কে ত্যাজ্য ঘোষণা করা কিম্বা মৃত্যুর পূর্বে যে কোন উপায়ে বা মৃত্যুর সময় ওসীয়তের মাধ্যমে তাকে উত্তরাধীকার থেকে বঞ্ছিত করা ইসলামী দৃষ্টিতে নাজায়েয বা অবৈধ। ‘ত্যাজ্য-পুত্র’ শব্দটির অস্তিত্ব ইসলামে নেই। এটা হিন্দু সমাজ থেকে আমদানী করা হয়েছে। তাই পিতা-মাতার মৃত্যুর পর ঐ সন্তান ইসলামের বণ্টননীতি অনুযায়ী তার মীরাছ পেয়ে যাবে। এটা তার হক। দেখুন সূরা নিসাঃ ১১ নং আয়াত।

কাউকে মীরাছ থেকে বঞ্ছিত করার অর্থ হচ্ছে তাকে তার সম্পদ থেকে বঞ্ছিত করা। আর এটা অপরাধ। আল্লাহ বলেন, يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا لَا تَأْكُلُوا أَمْوَالَكُمْ بَيْنَكُمْ بِالْبَاطِلِ إِلَّا أَنْ تَكُونَ تِجَارَةً عَنْ تَرَاضٍ مِنْكُمْ وَلَا تَقْتُلُوا أَنْفُسَكُمْ إِنَّ اللَّهَ كَانَ بِكُمْ رَحِيمًا “হে ঈমানদারগণ! তোমরা একে অপরের সম্পদ অন্যায়ভাবে গ্রাস করো না। কেবলমাত্র তোমাদের পরস্পরের সম্মতিক্রমে যে ব্যবসা করা হয় তা বৈধ। আর তোমরা নিজেদের কাউকে হত্যা করো না। নিঃসন্দেহে আল্লাহ তা’আলা তোমাদের প্রতি দয়ালু।” (সূরা নিসাঃ ২৯)
রাসূলুল্লাহ (সা.)বলেন, যে ব্যক্তি অন্যায়ভাবে অর্ধহাত পরিমাণ কারো জমি দাবিয়ে নিবে। কিয়ামত দিবসে আল্লাহ তার গলায় সত তবক জমি ঝুলিয়ে দিবেন।” (বুখারী ও মুসলিম)

তবে কোন সন্তান পিতামাতার চরম অবাধ্য হলে বা ভয়ানক সন্ত্রাসী হলে এবং নিজেরা তাকে শুধরাতে না পারলে তাকে সংশোধনের জন্যে বা শিক্ষা দেয়ার জন্যে যথাযথ কর্তপক্ষের হাতে সোপর্দ করা যেতে পারে।
তবে হ্যাঁ, কোন সন্তান যদি ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করে মুরতাদ হয়ে যায়, তখন সে ইসলামী শরীয়তের আইন অনুযায়ী মুসলিম পিতামাতার মীরাছ থেকে বঞ্ছিত হবে। কেননা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, لَا يَرِثُ الْمُؤْمِنُ الْكَافِرَ وَلَا يَرِثُ الْكَافِرُ الْمُؤْمِنَ কোন মুমিন কাফেরের মীরাছ পাবে না এবং কোন কাফেরও কোন মুমিনের মীরাছ পাবে না। (বুখারী ও মুসলিম)

উত্তর দিয়েছেনঃ আবদুল্লাহ আল কাফী / 2014-01-27



Fatal error: Cannot redeclare EPCNTR_Go_Error() (previously declared in /home4/hadithbd/public_html/counter/counter.php:614) in /home4/hadithbd/public_html/counter/counter.php on line 637