Donate Now
কীবোর্ড সিলেক্টরঃ ফনেটিক বিজয় ইউনিজয়   ইংরেজী
হাদিস প্রশ্নোত্তর/দু'আ/গ্রন্থ প্রশ্নোত্তর (বাংলা হাদিস) গুগল হুবুহু সার্চ
 
 
Donate Now!
Google Play

Google App Google Play

প্রশ্নঃ

সালাতের সময় প্রতি রাকাআতের শুরুতে,সুরা ফাতিহা পাঠের আগে "বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম" বললে কি কোনো সমস্যা আছে? নাকি একদম প্রথম রাকাআতের পর আর না বলাই ভালো? কুরআন ও হাদিসের আলোকে জানাবেন কি?

উত্তরঃ

উত্তরঃ সালাতের সময় প্রতি রাকাতের শুরুতে সূরা ফাতিহা পাঠের আগে বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম বললে কোন সমস্যা নাই। বরং এটিই উত্তম। বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম পড়ার ক্ষেত্রে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ রাকাতে পড়া না পড়ার মধ্যে পার্থক্য না করা উচিত। (অর্থাৎ প্রথম রাকআতে পড়তেই হবে বাকী অন্য রাকআতে না পড়লেও চলবে এ ধরণের মন্তব্য না করাই উত্তম)।

তবে বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম নামাযে উচু স্বরে  বলতে হবে না নীচু স্বরে? এ ব্যাপারে উলামাদের মাঝে মতানৈক্য রয়েছে; আর তা নিম্নরূপঃ

যারা বলেনঃ যে সমস্ত নামাযে স্বরবে কিরাআত পড়া হয়, তাতে বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম নীচু স্বরে পড়তে হবে, তারা বলেনঃ বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম সূরা ফাতিহার স্বতন্ত্র একটি আয়াত নয়; বরং এটি সূরা নামলের আয়াতের অংশ বিশেষ।(সূরা নামল, আয়াতঃ ৩০)

অতএব নামাযে বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম নীচু স্বরে পড়ার মাধ্যমে সূরা ফাতেহা এবং অন্য সূরা পড়ার মাঝে পার্থক্য নিরূপণ করা হয় (অন্যান্য আয়াত উচু স্বরে পড়া হবে এবং বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম নীচু স্বরে পড়া হবে)।

এ ছাড়া আরও কারণ হল; এ মর্মে ষ্পষ্ট দলীল বিদ্যমান রয়েছে;

১ম দলীলঃ

عَنْ عَائِشَةَ قَالَتْ كَانَ رَسُولُ اللَّهِ -صلى الله عليه وسلم- يَفْتَتِحُ الصَّلاَةَ بِالتَّكْبِيرِ وَالْقِرَاءَةَ بِ (الْحَمْدُ لِلَّهِ رَبِّ الْعَالَمِينَ...) (سنن أبي داود)

আয়িশা (রা.) হতে বর্ণিত তিনি বলেন ‘রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নামায শুরু করতেন তাকবীর (আল্লাহু আকবার)  এবং ‘আল হামদুলিল্লাহি রব্বিল আলামীন’ দ্বারা’। (সুনানে আবু দাউদ)

২য় দলীলঃ

عَنْ أَنَسِ بْنِ مَالِكٍ أَنَّهُ حَدَّثَهُ قَالَ صَلَّيْتُ خَلْفَ النَّبِىِّ -صلى الله عليه وسلم- وَأَبِى بَكْرٍ وَعُمَرَ وَعُثْمَانَ فَكَانُوا يَسْتَفْتِحُونَ بِ (الْحَمْدُ لِلَّهِ رَبِّ الْعَالَمِينَ) لاَ يَذْكُرُونَ بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَنِ الرَّحِيمِ فِى أَوَّلِ قِرَاءَةٍ وَلاَ فِى آخِرِهَا. (صحيح مسلم)

আনাস বিন মালেক (রা.) হতে বর্ণিত তিনি বলেন আমি  ‘রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর পিছনে এবং আবু বকর (রা.), উমার (রা.) এবং উসমান (রা.)-এর পিছনে নামায আদায় করেছি তারা নামায শুরু করতেন আল হামদু লিল্লাহি রব্বিল আলামীন-এর মাধ্যমে’ তাঁরা বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম নামাযের প্রথমে বা শেষে পড়তেন না’। (সহীহ মুসলিম)

উক্ত হাদীসগুলো দ্বারা বুঝা যায় বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম নীচু স্বরে পড়া এবং একেবারে ছেড়ে না দেয়া।

আর সূরা ফাতিহা সাত আয়াত বিশিষ্ঠ না ছয় আয়াত? এ সম্পর্কে কথা হলঃ

যারা বলেনঃ বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম প্রত্যেক সূরার স্বতন্ত্র একটি আয়াত, তারা সূরা ফাতিয়ারও একটি  আয়াত গনণা করেছেন এবং বলেছেন বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম একটি আয়াত এবং তার পরবর্তী ছয়টি আয়াত, মোট সাতটি আয়াত।

আর যারাঃ বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম’কে সূরা ফাতিহার স্বতন্ত্র একটি আয়াত গণনা করেননি তারাঃ ‘সিরাতাল্লাযিনা আনআমতা আলাইহিমকে একটি আয়াত গণনা করে সাতটি আয়াত গণনা করেছেন।

 
Type the characters you see in the picture below.