Donate Now
কীবোর্ড সিলেক্টরঃ ফনেটিক বিজয় ইউনিজয়   ইংরেজী
হাদিস প্রশ্নোত্তর/দু'আ/গ্রন্থ প্রশ্নোত্তর (বাংলা হাদিস) গুগল হুবুহু সার্চ
 
 
Donate Now!
Google Play

Google App Google Play

প্রশ্নঃ

১)বিয়ের আগে কোনও মেয়ের সাথে কি সম্পর্ক করা যাবে?

২)বিয়ের আগে কোনও মেয়েকে ভালোবেসে বিয়ে করা যাবে কি?

৩)কি রকম সম্পর্ক রাখতে পারব মেয়েদের সাথে?

৪)আমাদের মামাতো, খালাতো, ফুফাতো বোনের সাথে কি রকম সম্পর্ক রাখা দরকার ? তাদের সাথে চলা ফেরা, গোরা ফিরা করা, কথা-বার্তা বলা যাবে কি?

 

উত্তরঃ

বিসমিল্লাহ ওয়াস-সালাতু ওয়াস-সালামু আলা রসূলিল্লাহ, ওয়া আলা আলিহি ওইয়া মান ওয়ালাহ।

আসসালামু'আলায়কুম ওয়া-রাহমাতুল্লাহ,

মেয়েদের সাথে সম্পর্কঃ

মানুষের সাথে আমাদের স্বাভাবিক একটা মানবিক সম্পর্ক থাকে। যেমন প্রয়োজনানুযায়ী দেখা-সাক্ষাৎ করা, কথা-বার্তা বলা, লেন-দেন করা, ইত্যাদি। এই সম্পর্ক যে কারো সাথেই থাকতে পারে। এতে কোন দোষের কিছু নেই। কিন্তু বিয়ের আগের সম্পর্ক বলতে যদি বুঝানো হয় কারো সাথে প্রেমের সম্পর্ক রাখা তবে তা জায়েজ় নেই।

বিয়ের আগে ভালবাসাঃ

বিয়ের আগে ভালবাসা বলতে যদি বুঝানো হয় যে একজন বিপরীত লিঙ্গের ব্যক্তিকে কোন সুন্দর গুণাবলীর জন্য পসন্দ করা ও তাকে বিয়ের আকাঙ্ক্ষা পোষণ করা তবে তাতে ইসলামের কোন আপত্তি নেই। সে ক্ষেত্রে আপনাকে ঐ মেয়ের অভিভাবকের কাছে প্রস্তাব পাঠাতে হবে। হয় নিজে যাবেন অথবা আপনার পক্ষ ভাল ভূমিকা পালন করতে পারে এমন কাউকে পাঠাবেন। কিন্তু কনে পক্ষ যদি রাজী না হয় তাতে আফসোসের কিছু নেই। আপনি আল্লাহ তা'আলার কাছে আপনার জন্য যেখানে কল্যাণ আছে তা কামনা করে ইস্তিখারা করবেন। মজনু হয়ে যাবার কোন সুযোগ আমাদের দীনে নেই।

গায়ের মাহরাম আত্মীয়াদের সাথে সম্পর্কঃ

এদের সাথে কথা-বার্তা বলায় কোন দোষ নেই যদি সেটা দৈনন্দিন স্বাভাবিক কথা বার্তা হয়ে থাকে। তাদেরকে সালাম দেয়া বা তাদের সালামের জবাব দেয়া, খোঁজ খবর নেয়া, বিভিন্ন বিষয়ে সাহায্য সহযোগিতা করা ইত্যাদি। এক্ষেত্রে আপনাকে লক্ষ্য রাখতে হবে আপনার ঐ সমস্ত বোনেরা যেন আপনার সাথে হিজাবের সীমারেখা মেনে চলেন। কিন্তু তাদের কারো সাথে একান্তে সাক্ষাৎ করা বা কথা-বার্তা বলার সুযোগ নেয়া ঠিক নয়। তাদের সাথে তাদের কোন মাহরাম পুরুষ আত্মীয় না থাকলে ঘুরাফিরা করা উচিৎ নয়।

 
Type the characters you see in the picture below.